system update দিলে কি হয়? ফোন restart দিলে কি হয়?

system update দিলে কি হয়? ফোন restart দিলে কি হয়?



কিছুদিন পর পর আমরা প্রায় সময় দেখতে পারি আমাদের ব্যবহৃত ফোনে অফিশিয়াল ভাবে আপডেট দেয়ার নোটিশ দিয়ে থাকে।


এছাড়াও আপনার ফোন যদি কিছু সময়ের জন্য কাজ না করে তাহলে আপনি হয়তো এটিকে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য মোবাইল রিস্টার্ট দেওয়ার মতো কাজ করে থাকেন।


সিস্টেম আপডেট দিলে আসলে কি হয়? এছাড়াও আপনি যদি কোন বিরক্তিকর সময় যখন আপনার ফোনটি কাজ না করে তখন মোবাইল রিস্টার্ট যদি দেন তাহলে মোবাইল রিস্টার্ট দিলে কি হয়?

সিস্টেম আপডেট নোটিফিকেশন কেন আসে?



প্রায় সময় আপনি হয়তো আপনার ব্যবহৃত ফোনে আপনার সিস্টেমটিকে আপডেট দেয়ার মতো একটি নোটিফিকেশন পেয়ে থাকেন।


মূলত সিস্টেম আপডেট নোটিফিকেশন আসার কারণ হল আপনি যে ফোন ক্রয় করেছেন ওই ব্যবহৃত ফোনের কোন আপডেট ভার্সন বর্তমানে মার্কেটপ্লেসে অবস্থান করছে অর্থাৎ একই মডেলের নতুন কোন ফোনে ওই আপডেট বর্তমানে দেয়া হয়েছে।


আর আপনি যাতে ওই সিস্টেম আপডেট দেয়ার মাধ্যমে তাদের বর্তমান মডেলে দেয়া নতুন ফিচারস গুলো উপভোগ করতে পারেন, সেজন্য আপনাকে নোটিফিকেশন আকারে আপনার ফোনটিকে আপডেট দেয়ার জন্য রিকমেন্ড করে।


এরই ফলশ্রুতিতে আপনি প্রায় সময় আপনার ফোনের নোটিফিকেশন বার এ সিস্টেম আপডেট দেয়ার মতো নোটিফিকেশন গুলো দেখতে পারেন।

system update দিলে কি হয়?



আমরা আসলে অনেকেই জানিনা সিস্টেম আপডেট দিতে আসলে আমাদের ফোনের কি লাভ হবে? সিস্টেম আপডেট দেয়া আসলেই কি উপকারী?


ব্যাপারটা এরকম যে আপনার ফোনের নোটিফিকেশন বারে কিংবা সেটিং অপশনে সিস্টেম আপডেট অপশন ঠিক তখনই এনাবল হবে যখন আপনার ফোনের জন্য অফিশিয়াল কোন নতুন ফিচারস রিলিজ হবে।


আর আপনি যদি ওই নোটিফিকেশনের সাড়া দিয়ে আপনার সিস্টেমটিকে নতুন ভার্সনে আপডেট দিয়ে দেন তাহলে আপনি নানা রকমের সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।


আরে সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু সুবিধা হলোঃআপনার ফোনের এন্ড্রয়েড ভার্সন বৃদ্ধি পাবে ব্যাটারি ক্যাপাসিটি বৃদ্ধি পাবে সহ আরো অনেক।


system update দিলে কি হয় এই সম্পর্কে আপনি হয়তো এখন জেনে গেছেন এবং যদি কখনো আপনার ফোনে সিস্টেম আপডেট এর কোন নোটিফিকেশন আসে তাহলে অবশ্যই এখন আপনি আর এটি এড়িয়ে চলবেন না।

মোবাইল রিস্টার্ট দিলে কি হয়?



রিস্টার্ট বিষয়টা আসলে কি? একেবারে আভিধানিক অর্থেই রিস্টার্ট বলতে আমরা  যা বুঝি যে কোন কিছুই আবার পূর্বে থেকে শুরু করা।


অনেক সময় দেখা যায় আমাদের ব্যবহৃত ফোনটি স্বাচ্ছন্দ মত কাজ করে না হয়তো কোন ল্যাগিং সমস্যার মধ্যে পড়ে থাকে এবং এটি হ্যাং হয়ে যায়।


আপনার ফোনটি হ্যাং হওয়ার মত অনেক কারণ হতে পারে যেমন ব্যাকগ্রাউন্ডে যদি অতিরিক্ত পরিমাণ অ্যাপস জমা হয়ে থাকে তাহলে আপনার ফোন হ্যাক হতে পারে কিংবা আপনার ফোনে ব্যবহৃত অ্যাপস গুলো যদি বেশি র্যাম দখল করে তাহলে ফোন হ্যাং হতে পারে।


এবার আপনি যদি আপনার ফোনটিকে পাওয়ার বাটনে কয়েক সেকেন্ড ধরার মাধ্যমে রিস্টার্ট করে দেন তাহলে এটি আবার পূর্বের মত কাজ শুরু করে দিবে।


অর্থাৎ যখনই আপনি আপনার ফোনটি রিস্টার্ট করে নিবেন তখন আপনার ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে ওপেন হওয়া সমস্ত অ্যাপস গুলো বন্ধ হয়ে যাবে এবং অযাজিত যে অ্যাপস গুলো আপনার ফোনের র্যাম দখল করছে সেগুলো তা বন্ধ করে দিবে।

ফোন রিসেট দিলে কি হয়? 



আপনার ফোন যদি পুরোপুরি ভাবে কাজ না করে এবং আপনি যদি চান আপনার ফোনটিকে নতুন যেভাবে ক্রয় করে এনেছিলেন ঠিক সেই মুডে নিয়ে যেতে তাহলে আপনি আপনার ফোন ফ্যাক্টরি রিসেট দিতে পারেন।


বিষয়টা এইরকম যে আপনি যদি আপনার ফোনটিকে ফ্যাক্টরি এবং ডাটা রিসেট করে দেন, তাহলে আপনি যেভাবে আপনার নতুন ফোনটিকে ক্রয় করেছিলেন এবং যে লুকিং এই ফোনটি আপনাকে দিয়েছিল, ঠিক একই রকমভাবে আপনি ফোন রিসেট করার পরে দেখতে পারবেন।


তবে এখানে একটি বিষয় লক্ষণীয় আর সেটি হলো আপনি যদি আপনার ফোনটিকে ফ্যাক্টরি এবং ডাটা রিসেট করে দেন তাহলে আপনার ফোনে ডাউনলোড দেয়া সমস্ত অ্যাপস গুলো রিমুভ হয়ে যাবে।


শুধু তা নয় আপনি আপনার ফোন স্টোরেজ এই সমস্ত ডাটা গুলো ডাউনলোড করে রেখেছিলেন সেই সমস্ত ডাটা গুলো অটোমেটিক রিমুভ হয়ে যাবে।


আপনি আপনার ফোনটিকে তখনই ফ্যাক্টরি এবং ডাটা রিসেট করবেন তখন আপনার গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসগুলো কে আপনি রিকভার করে রাখতে পারবেন।


আশা করি আপনি এই সম্পর্কে পুরোপুরি জেনে নিতে পেরেছেন যে,system update দিলে কি হয়? মোবাইল রিস্টার্ট দিলে কি হয় এবং ফোন রিসেট দিলে কি হয়?

Leave a Comment

three + two =