ফেসবুক ভালোবাসা কিংবা প্রেম কতটা যৌক্তিক?

ফেসবুকে অনেক সময় দেখা যায় যে আমরা কারো সাথে কয়েকদিন কথা বলার পরেই তার প্রেমে জড়িয়ে পড়ি।

আসলে ভার্চুয়াল যুগের বিষয়টা এরকম যে যখনই এখানে কোন মেয়ের সাথে আপনার পরিচয় হবে, আপনি চাইলে খুব তাড়াতাড়ি তাঁর সম্পর্কে খুব বেশি ক্লোজ হয়ে যেতে পারেন।

এখানে আপনি যখনই কোন মেয়ের সাথে প্রথম পরিচয় করবেন তখনকার বিষয়গুলো এক রকমের ধোঁয়াশা মত লাগবে।

আর যত দিন যাবে তত দিন আপনি তার প্রতি আরো খুব বেশি আকৃষ্ট হয়ে পড়বেন, একসময় এই  সম্পর্ক রূপ নিতে পারে  ভালোবাসা নামক সম্পর্কে।

অনেকেই সাধারণত এটা ধারণা করে থাকেন যে ফেসবুকে আসলেই সত্যি কারের ভালোবাসা হয় কিনা?

এটা আসলে খুবই জটিল একটা প্রশ্ন। ভালোবাসা সত্যিকারে হওয়ার জন্য কোন ভার্চুয়াল মাধ্যমে দরকার নেই, এগুলা হয়ে যায়।

অনেক সময় দেখা যায় আমাদের বাংলাদেশ থেকে অনেক ছেলেই বিদেশ থেকে কোন মেয়েকে বাংলাদেশ নিয়ে এসেছে। এটাই হলো সত্যি কারের ভালোবাসা।

তবে ফেসবুকে এরকম অনেক সত্যি কারের ভালোবাসা হয়। সবকিছুই নির্ভর করবে আপনার এবং ওই অপরপাশের মেয়েটির উপর।

ফেসবুকে আপনি ভালোবাসায় কেন জড়াবেন না এর কয়েকটি সম্ভাব্য কারণ আমি নিচে তুলে ধরছি।

পোস্টের ভিতরে যা থাকছে

 ফেসবুক ব্লক

ফেসবুকে আসলে যখনই আপনার কাউকে ভাল লাগবেনা তখনই আপনি ওই মানুষটিকে যদি একবার ব্লক করে দেন তাহলে সে কখনোই আপনার সাথে যোগাযোগ রাখতে পারবে না।

আর যে কাউকে অবহেলা করার জন্য কিংবা যে কাউকে প্রয়োজনের পর গুরুত্ব না দেয়ার জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার ফেসবুকের।

আপনি যখন তখন যে কাউকে চাইলে ব্লক করে দিতে পারেন। আর এটা যদি হয় আপনার ভালোবাসার মানুষ তাহলে?

উদাহরণস্বরূপ আপনি কারো সঙ্গে ভালোবাসা সম্পর্কে জড়িয়ে গেলেন। এবং যখনই আপনি কারো প্রয়োজন হয়ে যাবেন তখনই  আপনার জন্য ব্লক এর দরজা খুলে যাবে।

ফলশ্রুতিতে আপনি কি পাবেন?  দুঃখ কষ্ট ছাড়া তো আর কিছুই না।

 যোগাযোগ ব্যবস্হা 

আপনি যদি ফেইসবুক এ খুব দূরের কোন মেয়ের সাথে ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়েন তাহলে ততক্ষণ আপনি তার সাথে সম্পৃক্ত থাকবেন যতক্ষণ সে ফেসবুকে থাকবে।

এখন আপনি যদি তার কাছ থেকে ফোন নাম্বার কালেক্ট করে নিন, কিংবা ভুয়া কোন ডিটেইলস কালেক্ট করে নিন, তাহলে এটা আদৌ কতটা যুক্তিক?

এখানে শুধুমাত্র ফোন ফোন নাম্বার সঠিক থাকলেই হবে। কারণ বেশ কিছু প্রেমিক ফোন নাম্বারের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখে। অনেকে আবার দেখা করতেও চায়।

অনেক সময় তা সম্ভব হয় অনেক সময় এটা সম্ভব হয়না। এই বিষয়গুলো বাদ দেয়া যাক আপনি যদি ফোন নাম্বার নিয়ে নেন তাহলে কল দিয়ে কথা বললেন।

তারপর যখন ওই ব্যক্তিটি সাথে আপনার কোন ঝগড়া হলো, এবং সে তার ফোন নাম্বার সহ ফেইসবুক একাউন্ট ডিএকটিভ করে দিল? আপনার কি হবে?

নতুন করে আরেকটি প্যারা দেয়া যাক, আপনি হয়তো খুব বুদ্ধিমান এর সাথে তার দেয়ার ডিটেলস অনুযায়ী বাড়িতে চলে গেলেন? গিয়ে দেখলেন এখানে অন্য কেউ বসবাস করে? তখন আপনি??

আর যখনই আপনি উপরে দেয়া দুইটি বিষয় খুব মনোযোগ সহকারে পড়বেন এবং বুঝবেন তবে আপনি ভার্চুয়াল প্রেম করার ইচ্ছা টা হারিয়ে ফেলবেন।

তবে বিষয়টা এরকম নয় যে ফেসবুকে শুধু ভুয়া ভালোবাসাগুলো হয়। অনেক সময় এখানে অনেক সত্তিকারের ভালবাসা হয় যা বাস্তবে রূপ নেয়।

আপনি যদি ফেসবুকে সত্তিকারের ভালোবাসার কোনো মানুষ খুঁজে পেতে চান তাহলে অবশ্যই নিচের বিষয়গুলো তার মধ্যে আগে খুঁজে নিন।

▪ সততা

▪ আপনাকে কতটা ভালোবাসে

▪ ধৈর্য

▪ আপনার প্রতি টান

▪ বিশ্বাস

▪ কথা বলার ধরন

 

সততা

আপনাকে ভার্চুয়ালে যে কারো সাথে প্রেমে জড়াবেন তখনই তার কাছ থেকে এটা নিশ্চিত হয়ে যাবেন যে সে আসলে একজন সৎ ব্যক্তি।

 কারণ ভার্চুয়াল এরকম অনেক মেয়ে আছে যারা সারাক্ষণ তাদের ফেসবুক মেসেঞ্জারে ছেলেদের সাথে সময় দিতে ব্যস্ত থাকে।

আর আপনি যদি এরকম কোন মেয়ের খপ্পরে পড়েন তাহলে তার থেকে দূরে চলে আসো। কারণ সে যে কোন সময় আপনার পরিবর্তে অন্য কারো সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে যেতে পারে।

আপনাকে কতটা ভালোবাসে

আসলে কে কাকে কতটা ভালোবাসে এটা কখনো প্রকাশ করার মত নয়। এটা প্রকাশ পায় কাজে। আপনি নানা রকম ভাবে তাকে পরীক্ষা করতে পারেন।

  1. যেমন আপনি দেখতে পারেন যে তার দেয়া প্রতিটা ম্যাসেজের রিপ্লে দেয়ার স্পিড, সে কতটা ধৈর্য সহকারে আপনার কথাগুলো শুনে এবং গুরুত্ব দেয়।

এইসব কিছু বিষয় আপনি যখন নিশ্চিত হয়ে যাবেন তখনই আপনি কোন মেয়ে কিংবা ছেলের সাথে ভালোবাসা সম্পর্কে জড়াতে পারেন।

আর তাই আপনি উপরে দেয়া যেকোনো পদক্ষেপ যখনই যথাযথভাবে নিশ্চিত হয়ে যেতে পারবেন তখনই আপনি যে কারো সাথে ভালোবাসায় জড়াতে পারেন।

মোট কথা হল আপনাকে অবশ্যই যেকোনো স্টেপ খুবই বুঝেশুনে নিতে হবে নয়তো সারাজীবন পস্তাতে হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 2 =

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap