ফেসবুক ও বাংলাদেশ| ফেসবুকের নামে প্রতিনিয়ত কি হচ্ছে?

ফেসবুকের জনপ্রিয়তা প্রতিনিয়ত  বিপুল হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, প্রত্যেকটি  দেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা পূর্বের চেয়ে কয়েকগুণ বেড়ে যাচ্ছে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোর মতোই বাংলাদেশেও এর জনপ্রিয়তা প্রতিনিয়ত  বেড়েই চলেছে, ফলশ্রুতিতে ফেসবুক হয়ে উঠেছে বিশ্বের সর্বাধিক ব্যবহৃত সোসিয়াল গণমাধ্যম।

ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাংলাদেশে কতটা পরিলক্ষিত হয় সেটা বুঝা যায় বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহারকারী তে বাংলাদেশের অবস্থান জানলে।

ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনুযায়ী বর্তমানে বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশের স্থান অষ্টম। বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা এখন প্রায় ১কোটি ১০লক্ষ।

বর্তমানে এদেশের বিপুল জনগোষ্ঠি ফেসবুকে তাদের অবসর সময়ে একমাত্র সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছে, শুধু তা নয়।

 ফেসবুকে যে শুধুমাত্র অবসর সময় কাটানো হয় তা কিন্তু নয়, বর্তমানে বাংলাদেশের কিছু কোম্পানি তাদের ব্যবসার প্রোডাক্ট গুলো প্রচারণার জন্য  ফেইসবুক কে বেছে নিয়েছে।

 এতে তাদের ব্যবসার অনেক খারাপ হচ্ছে এবং স্বল্প সময়ে, স্বল্প খরচে তাদের প্রোডাক্টগুলো প্রমোট করতে সক্ষম হচ্ছে।

বাংলাদেশি বিপুল পরিমাণ ফেসবুক ব্যবহারকারীর মধ্যে রয়েছে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে তরুণ প্রজন্ম। তারা তাদের জীবনের নানা ধরনের বিষয় ফেসবুকে শেয়ার করে।

তাছাড়া অন্যদের সফলতার গল্প শুনে নিজেরা উদ্বুদ্ধ হয়,

বর্তমানে ফেসবুকে বাংলাদেশ কর্তৃক অনেক ধরনের শিক্ষনীয় গ্রুপ খোলা হয়েছে। যাতে করে শিক্ষার্থীদের ফেসবুক ব্যবহার করার সময় টুকু বৃথা না যায়।

এছাড়াও বাংলাদেশ কর্তৃক ফেসবুকে খোলা হয়েছে নানা ধরনের বিনোদনমূলক গ্রুপ, যাতে করে যে কেউ মন খারাপের সময় পোস্টগুলো পড়ে বিনোদন লাভ করতে পারে।

বর্তমানে বাংলাদেশিরা ফেসবুক ব্যবহারে খুব বেশি দক্ষ হওয়ার কারণে, তারা ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করে আয় করতে সক্ষম হচ্ছে।

এছাড়াও ফেসবুকের মাধ্যমে গড়ে উঠছে নানা ধরনের কর্মসংস্থান।

তাছাড়া আপনি জানলে অবাক হবেন যে ফেসবুক ব্যবহারকারী সংখ্যা অনুযায়ী যদি বিশ্বের শহরগুলোকে আলাদা করা হয়, তাহলে দ্বিতীয় স্থানে থাকবে বাংলাদেশের ঢাকা শহর।

মোটকথা হলো ফেসবুক ব্যবহারকারী শহরগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা শহর হল বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয়।

তাছাড়া প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের যেকোনো শ্রেণি-পেশার মানুষ জড়িয়ে পড়ছে ফেসবুকের মায়াজালে।

দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর ফেসবুক ব্যাবহার করে শুধুমাত্র যে এটাকে ভালো কাজে ব্যবহার করছে তা কিন্তু নয়, এর খারাপ প্রভাব মানবজীবনে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে।


প্রথমত ছাত্র-ছাত্রীদের কথা চিন্তা করলে আপনি স্পষ্ট দেখতে পারবেন না তারা ফেসবুক নামক  সোসিয়াল গণমাধ্যমের আসক্তির কারণে লেখাপড়ায় পিছিয়ে পড়ছে।

অনেক শিক্ষার্থী এত মারাত্মক ভাবে ফেসবুকে আসক্ত হয়েছে যে তারা খাওয়ার সময়, লেখাপড়ার সময়, কিংবা যে কোনো গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ফেইসবুক কে নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

যার কারণে শুধু তাদের লেখাপড়া নয়, সুন্দর ভবিষ্যৎ প্রতিনিয়ত অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছে।

এছাড়াও বাংলাদেশে ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে নানা ধরনের সামাজিক ব্যাধি, তরুণেরা এখান থেকে শিখছে নানা ধরনের অপরাধ মূলক কাজ।

ফেসবুকে এরকম অনেক অবৈধ গ্রুপ আছে ,যে গ্রুপগুলোতে প্রতিনিয়ত বাংলাদেশি তরুণেরা নানা ধরনের অবৈধ কার্যকলাপ শিখছে।

এছাড়াও সমস্ত রাত জেগে ফেসবুক ব্যবহার করার মাধ্যমে তাদের মানবদেহে ছড়াচ্ছে নানা ধরনের রোগব্যাধি।

সোসিয়াল গণমাধ্যম ব্যবহারের মূলমন্ত্র হলো আপনি এটিকে যেভাবে ব্যবহার করবেন তা ঠিক তেমনভাবে আপনার জীবনের উপর প্রভাব ফেলবে।

বাংলাদেশে ফেসবুকের ব্যবহার এর খারাপ দিকগুলো সম্পর্কে সবাই যদি সচেতন হয়, তাহলে এটি ব্যবহারে এই বিপুল পরিমাণ মানব গুষ্টি লাভবান হবে।

আর উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো এই হলো বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহার এর উপকারিতা এবং অপকারিতা।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 + 8 =

close
Scroll to Top
Share via
Copy link