ফেসবুক স্পামিং কি?ফেসবুক স্প্যামার হতে চান?

ফেসবুকে স্প্যামারদের কথা কখনো শুনেছেন? হয়তো আপনি কখনো তাদের ধারে কাছে যাওয়ার সুযোগ পান না, কারণ আপনি তাদের ভয় পান?

যখনই আপনি ফেসবুক নামক প্ল্যাটফর্মটিতে কোন স্প্যামারদের কথা শুনেন তখনই আপনি গুটিয়ে যান, এটা মনে করেন যে ওর সাথে লাগতে গেলেই আমার সব শেষ।


আমরা এটা বিশ্বাস করি যে যদি আমরা কোন ফেইসবুক স্প্যামার সাথে টক্কর দিতে চাই তখনই আমরা আমাদের আইডিটা হারিয়ে ফেলবো,।

তারা করে কি জানেন? এই ফেসবুক স্প্যামার আপনার ফেসবুক আইডি দিকে যখন একটু নজর দিবে, তারা রিপোর্ট করার মাধ্যমে আপনার ফেসবুক আইডি নষ্ট করে দিবে।

কারণ এই স্প্যামারদের আমাদের একটি টিম থাকে, যেই টিমে  একদম কম হলে দশজন থেকে কয়েক শত মেম্বার্স থাকতে পারে, শুধু তাই নয় আপনি যদি এই টিমে যুক্ত করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার কাছে পুরাতন ফেসবুক আইডি প্রয়োজন হবে।

আর এই আইডি সংখ্যা একটি হলে আপনি কিন্তু স্প্যামারদের জগতের জন্য প্রযোজ্য নয়, আপনাকে অবশ্যই এক্ষেত্রে চার পাঁচটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এর মালিক থাকা অবশ্যই প্রয়োজন।

আর যখন এই 10-15 জন কিংবা 100 জনের কাছে এরকম চার-পাঁচটি করে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থাকবে, আপনি তখন যদি তাদের টিমের কারো  সাথে ফাপরবাজি করেন তাহলে তারা কি করবে?

নিশ্চয়ই ওই সমস্ত ফেসবুক স্প্যামার টিমের লোকেরা এর লোকেরা একত্র হয়ে আপনার ফেসবুক আইডিতে রিপোর্ট করবেন।

আর একইসাথে এই মাত্রাতিরিক্ত রিপোর্ট ফেসবুক কর্তৃপক্ষ যখনই রিভিও করবে তখন কোনো কিছু না ভেবেই আপনার ফেসবুক একাউন্ট ডিজেবল করে দিবে।

কারণ 100 জন খারাপ লোকের সামনে আপনি যদি একা ভাল থাকেন তাহলে ওই খারাপ দলের লোকেরাই আপনার চেয়ে এগিয়ে থাকবে এবং তারা আপনার সাথে জিতে যাবে।

আপনি কি ফেসবুক স্প্যামার হবেন?

এই প্রশ্নের জবাব একদম সোজা, কারণ ফেসবুকে যে কোন স্প্যামার গ্রুপের দিকে নজর করলে আপনি ঐ সমস্ত গ্রুপের যেকোনো পাবলিশ করা পোস্টে কমেন্ট বক্সে পাবেন- “ভাই আমি স্প্যামার হব”

আপনি অবশ্যই একজন ফেসবুক স্প্যামার হতে চান, যাতে করে যে কেউ আপনাকে দেখলেই ভয় পায় এবং আপনাকে সম্মানের চোখে দেখে।

স্প্যামার হতে হলে আপনাকে কি কি করতে হবে জানেন? প্রথমত অবশ্যই আপনি সিকিউর থাকতে হবে, এখানে সিকিউর বলতে আপনার ফেসবুক আইডি অবশ্যই ভেরিফাই করতে হবে।

আর যদি ভেরিফাই করতে না পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার ফেসবুক আইডি নিয়ে আপনি শঙ্কায় থাকবেন, কারণ  ফেসবুক স্পামিং জগতে গেলে আপনার শত্রুর অভাব হবে না।

আর তারা যখনই আপনার ফেসবুক আইডি সঙ্গে লেগে পড়ে থাকবে, তখনই আপনি হারিয়ে ফেলবেন আপনার ফেসবুক আইডি।

তবে আপনি যদি আপনার রিয়েল আইডি ভেরিফাই করতে না পারেন তাহলে আপনার বাবা কিংবা মায়ের নামে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে, তাদের নেশনাল আইডি কার্ড দিয়ে এটা ভেরিফাই করে নিন।

তারপরে আপনাকে কমপক্ষে ১০ টি ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মালিক হতে হবে, এই সমস্ত ফেসবুক আইডি অবশ্যই স্ট্রং হতে হবে, আর কিভাবে আপনি আপনার ফেসবুক আইডি স্ট্রং করতে পারবেন এটা জানতে হলে নিচের পোস্টটি দেখে আসুন।

ফেসবুক আইডি শক্ত করা হয়ে গেল, এবার আপনাকে অবশ্যই রিপোর্ট করা শিখতে হবে। কারণ  যে কেউ যখন আপনাকে একজন ভালো ফেসবুক স্প্যামার হিসেবে জানবে, তখনই সে আপনার কাছে সাহায্য চাইবে।

আরে সাহায্যটা হলো কেউ হয়তো ওই ব্যক্তিটি কে বিরক্ত করছে, আপনাকে বলবে যে ওই ব্যক্তির আইডি রিপোর্ট করে ডিজেবল করে দিন।

আর আপনি যদি রিপোর্ট করা না জানেন তাহলে কিভাবে ফেসবুক আইডি রিপোর্ট করবেন? এতে আপনাকে জেনে নিতে হবে।

শুধু তা নয় নিয়মিত ফেসবুক সংক্রান্ত যেকোন সমস্যা ভাবনায় রাখবেন এবং এই সমস্যাগুলো নিজে থেকে সলভ করার চেষ্টা করবেন।

এবং ফেসবুকের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট সম্পর্কে জেনে রাখবেন, ফেসবুক আইডি ডিজেবল হলে কিভাবে  তা ফেরত আসবেন এগুলো জেনে রাখবেন।

আর এই সমস্ত যেকোনো ধরনের স্টেপ সম্পর্কে জানতে হলে আপনি আমাদের ওয়েবসাইট টি সাবস্ক্রাইব করুন, আর আগের দেয়া ফেসবুক সংক্রান্ত সমস্ত আর্টিকেলগুলো কমপক্ষে একবার হলেও পড়ে নিন।

আর এই ওয়েবসাইটে পাবলিশ করা সমস্ত আর্টিকেলস যখন আপনি পড়ে নিবেন, তখনই আপনি শুধু ফেইসবুক স্প্যামার হিসেবে গণ্য হবেন যে তা নয়, আপনি একজন ফেসবুক বস হিসেবে বিবেচিত হয়ে যাবেন।

একদম শেষে আমাদের সবার একটি ভুল ধারণা ভেঙ্গে ফেলা যাক, অনেকেই মনে করেন যে ফেসবুক স্প্যামাররা হয়তো হ্যাকার, এটা আসলে সম্পূর্ণ ভ্রান্ত ধারণা।

এই ফেসবুক স্প্যামাররা শুধুমাত্র আপনার ফেসবুক আইডি রিপোর্ট করে ডিজেবল করে দিতে পারে, আর হ্যাকিং বলতে খুব বেশি হলে তারা আপনার ফেসবুক আইডি রিকভার করতে পারে।

তবে সমস্ত ফেসবুক স্প্যামাররা  কোনরকম হ্যাকিং এর সাথে সংযুক্ত নয়, তারা ফেসবুকে হ্যাকার নয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 1 =

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap