ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করব

ফেসবুক মার্কেটিং কি এবং ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন? সেই রিলেটেড বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে চান? তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য এক অনন্য আর্টিকেল হতে চলেছে।

আজকের এই আর্টিকেলে ফেসবুক Marketing রিলেটেড বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করা হবে। যাতে করে আপনি ফেসবুক Marketing এক্সপার্ট না হতে পারলেও এই রিলেটেড ধারনা অর্জন করতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং কি

সহজভাবে বলতে গেলে, ফেসবুক Marketing বলতে বুঝায়,  ফেসবুকে কাজে লাগিয়ে মার্কেটিংয়ের কাজ সম্পন্ন করা।

অর্থাৎ আপনার ব্যবসার কার্যক্রম আপনি যদি ফেসবুকের মাধ্যমে সম্পন্ন করতে সক্ষম হন, তাহলে সেটিকে ফেসবুক মার্কেটিং বলে আখ্যায়িত করা হবে।

এবার ব্যবসা বলতে যে কোন কাজকে বুঝাতে পারেন। এটা হয়তো হতে পারে কোন প্রোডাক্টে করা কিংবা আপনার ব্যবসা প্রচারণা করা।

অর্থাৎ ব্যবসার প্রচারণা করার কাজে আপনি যদি ফেইসবুক ব্যবহার করতে পারেন এবং সফলভাবে সেটি ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে সেটিকে ফেইসবুক মার্কেটিং বলে আখ্যায়িত করা যেতে পারে।

ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করব?

ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে জেনে নেয়ার পরে এবার একটি কমন প্রশ্ন হল ফেসবুক Marketing কিভাবে করব? কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করার কাজ সম্পন্ন করব?

ফেসবুক মার্কেটিং যেহেতু একটি বিশাল ব্যাপার। সেজন্য আপনাকে প্রথমত step-by-step দ্বারা গুলো জেনে নিতে হবে। তাহলে আপনি এই রিলেটেড জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং এর হাতিয়ার

  • একটি ফেসবুক পেজ
  • একটি ফেসবুক গ্রুপ
  • এবং আপনার ফেসবুক প্রোফাইল

উপরে উল্লেখিত তিনটি উপায়ে কাজে লাগে আপনি ফেসবুক মার্কেটিং করার কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক উপরে উল্লেখিত তিনটি উপায়ে কিভাবে কাজে লাগাবেন এবং ফেসবুক মার্কেটিং করা সম্পন্ন করবেন।

একটি ফেসবুক পেজ

আপনি যদি একটি বিজনেস ফেসবুক পেজ তৈরি করতে পারেন, তাহলে সেই বিজনেস ফেসবুক ব্যবহার করার মাধ্যমে Marketing করার কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে, আপনি যে রিলেটেড Marketing করতে চান, সেই রিলেটেড একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিন।

পেজটি থেকে ভালোভাবে রেসপন্স পাওয়ার জন্য, আপনি চাইলে একটি বিজনেস পেজ তৈরী করে নিতে পারেন। কিভাবে একটি বিজনেস পেজ তৈরি করতে হয়? সেই রিলেটেড তথ্যগুলো নিচে থেকে জেনে নিন।

জেনে নিনঃ ফেসবুক বিজনেস পেজ তৈরির নিয়ম

উপরে উল্লেখিত আর্টিকেল থেকে শিখে নিয়ে যখনই আপনি ফেসবুক বিজনেস পেজ তৈরি করার কাজ সম্পন্ন করে নেবেন, তখন আপনি এই পেজটিকে কাজে লাগাতে পারেন আপনার ব্যবসার ক্ষেত্রে।

যেহেতু, শুরুর দিকে ফেসবুক পেজ থেকে আপনি সেরকম কোন রেসপন্স পাবেন না, সেজন্য আপনাকে প্রথমত ফেসবুক পেজ বুস্ট করে নিতে হবে।

কিভাবে ফেসবুক পেজ বুস্ট করে নিতে হয় সেই রিলেটেড তথ্য নিচে থেকে জেনে নিতে পারেন

জেনে নিনঃ ফেসবুক পেজ বুস্ট করার নিয়ম

উপরে উল্লেখিত লিংক থেকে শিখে যখনই আপনি একটি ফেসবুক পেজ বুস্ট করে নিবেন, তখন আপনার ফেসবুক পেইজের কাস্টমার সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে।

আপনার ফেসবুক পেজের রিচ বৃদ্ধি পাবে এবং ফ্যান ফলোয়ার্স বৃদ্ধি পাবে।

ফেসবুক পেইজের ফ্যান ফলোয়ার্স বৃদ্ধি পাওয়ার পরে সেই পেজে আপনি চাইলে আপনার প্রোডাক্টগুলো প্রমোট করতে পারেন।

তাহলে সেই প্রোডাক্টগুলো বিভিন্ন রকমের মানুষের কাছে গিয়ে পৌঁছবে এবং আপনার ব্যবসা সফল হবে।

ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করা

এছাড়াও একই রকমের কাজ আপনি চাইলে ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করার মাধ্যমে করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার ফেসবুক গ্রুপ যত বেশি বড় হবে, ফেসবুক গ্রুপ থেকে সফলতা পাওয়ার কাজ ততো বেশি সহজ হবে।

আপনার বিজনেস রিলেটেড একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করতে পারেন এবং তারপরে সেই গ্রুপে আপনার প্রোডাক্ট গুলো প্রচার করতে পারেন।

তবে প্রচার করার ক্ষেত্রে সব সময় ন্যাচারালি প্রোডাক্টগুলো প্রচার করবেন। খুব বেশি পরিমাণে লিংক শেয়ার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

আপনি যদি ইনফোগ্রাফিক্স এক্সপার্ট হয়ে থাকেন, তাহলে বিভিন্ন রকমের ইনফোগ্রাফিক্স টুলস এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট গুলো ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

এক্ষেত্রে ফ্রি গ্রাফিক্স ডিজাইন স্টুল হিসেবে Canva ব্যবহার করা যেতে পারে।

যখনই আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট গুলো ফুটিয়ে তুলবেন, তখন সেটি আরও বেশি ন্যাচারালি কাস্টমারের সামনে ফুটে উঠবে।

এবং যেকেউ এতে আরো বেশি আগ্রহ পোষণ করবে।

আপনার ফেসবুক প্রোফাইল

উপরে যে ফেসবুক পেজ এবং গ্রুপের কথা মেনশন করা হয়েছে, সেই দুইটি উপায় সবচেয়ে বেশি কার্যকরী। তবে আপনার কাছে শুধু একটি পপুলার ফেসবুক প্রোফাইল থাকে তাহলে তার মাধ্যমে আপনি Marketing করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে ফেসবুক প্রোফাইলে বিভিন্ন রকমের ইনফোগ্রাফিক এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট গুলো ফুটিয়ে তুলতে পারেন এবং কাস্টমারকে প্রোডাক্টের দিকে আকৃষ্ট করতে পারেন।

তবে, এক্ষেত্রে যখনই আপনি কোন একটা লিঙ্ক শেয়ার করবেন, তখন লিংক শর্টনার ব্যবহার করার মাধ্যমে লিংক শেয়ার করবেন। অন্যতায় আপনার ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট লিঙ্ক ব্লক হতে পারে।

এছাড়াও নানা ক্ষেত্রে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট টেম্পোরারি ডিজেবল হওয়া থেকে শুরু করে পার্মানেন্টলি ডিজেবল হতে পারে।

উপরে উল্লেখিত তিনটি উপায়ে ফেসবুকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে আপনি ফেসবুক Marketing করার কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স pdf

এছাড়াও যে সমস্ত পিডিএফ বই পড়ার মাধ্যমে আপনি চাইলে ফেসবুক মার্কেটিং রিলেটেড ধারণা অর্জন করতে পারবেন, সে সমস্ত পিডিএফ বইগুলো লিংক নিচে দেওয়া হল।

Downlad Facebook Marketing PDF

উপরে উল্লেখিত লিঙ্ক থেকে আপনি চাইলে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স পিডিএফ গুলো ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এবং সেই সমস্ত বইগুলো পড়ার মাধ্যমে রিলেটেড জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

তবে, পিডিএফ বইগুলো পড়া শেষে আপনি যদি প্র্যাকটিক্যালি সে কাজগুলো করার দিকে বেশি মনোনিবেশ করেন, তাহলে সেটি আরও বেশি কাজে দিবে।

কারণ, একেবারে বেসিক জ্ঞান হিসেবে আমার এই আর্টিকেলটি যথেষ্ট। আপনি চাইলে এই সমস্ত ইনস্ট্রাকশন ফলো করতে পারেন এবং তারপরে ফেসবুক মার্কেটিং এ ঝাঁপিয়ে পড়তে পারেন।

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

এছাড়া ফেসবুক মার্কেটিং আপনি যদি আরো ভালোভাবে শিখতে চান, তাহলে আপনি চাইলে ফেসবুক মার্কেটিং রিলেটেেড কোর্স করতে পারেন।

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্সে, কোর্স ইনসট্রাক্টররা আপনাকে ফেসবুক মার্কেটিং করার বিভিন্ন দিকনির্দেশনা সম্পর্কে জানিয়ে দিবে।

এবং মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে সমস্ত ভুল গুলো করা থেকে বিরত থাকতে হবে, সেই রিলেটেড তথ্যগুলো আপনাকে জানিয়ে দিবে।

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স করার জন্য আপনি যে সমস্ত প্ল্যাটফর্ম থেকে সেই কোর্স করতে পারে সে সমস্ত প্ল্যাটফর্মের নিচে তুলে ধরা হলো।

উপরে উল্লেখিত লিংক এগুলোর মধ্যে ভিজিট করার মাধ্যমে আপনি চাইলে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স করতে পারবেন এবং সেই রিলেটেড জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ উপরের লিঙ্ক গুলো আমরা কোন ভাবে প্রমোশন করছি না। সেজন্য আপনার পছন্দ হলে ক্রয় করতে পারেন কিংবা আপনি চাইলে এড়িয়ে যেতে পারেন।

শেষ কথাঃ ফেসবুক Marketing করার ক্ষেত্রে আপনি যখন ফেসবুক পেজ কিংবা গ্রুপ ব্যবহার করবেন, তখন খুবই সাবধানতার সহিত সেগুলো ব্যবহার করবেন।

এক্ষেত্রে যতটা না বেশি লিংক শেয়ার করবেন, তার চেয়ে বেশি বিভিন্ন রকমের ইনফোগ্রাফিক শেয়ার করার দিকে মনোনিবেশ করতে পারেন।

কারণ, আপনি যত বেশি ন্যাচারালি কাস্টমার কেয়ার কৃষ্ট করবেন কাস্টমার ততবেশি আপনার সাথে থাকতে পছন্দ করবে।

এক্ষেত্রে ইনফোগ্রাফিক্স আপনার কাজটি সহজ করে দিতে পারে। যেহেতু বিভিন্ন রকমের ইনফোগ্রাফিক্স তৈরি করার জন্য আপনার মাস্টার লেভেলের ইনফোগ্রাফিক্স এক্সপার্ট হওয়া দরকার নেই , সেজন্য আপনি সেগুলো তৈরি করে নিতে পারেন।

এছাড়া বিভিন্ন ফ্রী ইনফোগ্রাফিক্স টুল কিংবা ক্যানবা ব্যবহার করার মাধ্যমে সেই কাজটি আরও বেশি সহজে করতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

close
Scroll to Top
Share via
Copy link