অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক | Online Birth Certificate Check

আপনি যদি অনলাইনে কিংবা যে কোন মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন করে থাকেন, তাহলে নিশ্চয়ই অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জেনে নিতে চাইবেন।

অর্থাৎ অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক করার নিয়ম সম্পর্কে আপনি জেনে নেয়ার মাধ্যমে, খুব সহজে আপনার জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে সর্বশেষ তথ্য কালেক্ট করে নিতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনি যদি নতুন জন্ম নিবন্ধন কার্ড তৈরি করেন, তাহলে সে জন্ম নিবন্ধন কার্ড সর্বশেষ তৈরি হয়েছে কিনা অর্থাৎ সর্বশেষ আপডেট কি রয়েছে, সেই সম্পর্কে জানতে পারেন।

অথবা আপনি যদি পূর্বে থেকে জন্ম নিবন্ধন কার্ড তৈরি করে থাকেন, তাহলে এই জন্ম নিবন্ধন কার্ড অনলাইনে করা হয়েছে কিনা, সেই সম্পর্কেও আপনি বার্থ সার্টিফিকেট চেক করার মাধ্যমে দেখে নিতে পারেন।

অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক

অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক করার জন্য প্রথমত বাংলাদেশে জন্ম নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট রয়েছে, সেই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে।

নিম্নলিখিত লিংক এ ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি চাইলে সহজেই ওয়েবসাইটে চলে যেতে পারবেন।

Birth Check

উপরে উল্লেখিত লিংকে যখন আপনি ভিজিট করবেন, তখন আপনি নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেইজ দেখতে পারবেন, যেখান থেকে আপনি খুব সহজে জন্ম নিবন্ধন চেক করে নিতে পারবেন।

অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক | Online Birth Certificate Check

লিংকে প্রবেশ করার পরে আপনাকে ভিন্ন ভিন্ন তিনটি বক্স দেওয়া হবে, যে সমস্ত বক্স ফিলাপ করে জন্ম নিবন্ধন চেক করে নিতে হবে।

প্রথম বক্সঃ প্রথম বক্সটিতে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন যে নাম্বার রয়েছে, সে জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি যথাযথভাবে বসিয়ে দিতে হবে।

অর্থাৎ আপনি যে জন্ম নিবন্ধন কার্ড পেয়েছেন, সে জন্ম নিবন্ধন কার্ড-এর যে নাম্বার রয়েছে সেই নাম্বার এখানে বসিয়ে দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি আপনি কোথায় পাবেন? সেই সম্পর্কে জানার জন্য নিচের ছবিটি দেখতে পারেন।

সহজভাবে বলতে গেলে, আপনি যে জন্ম নিবন্ধন কার্ড পেয়েছেন, সেই জন্ম নিবন্ধন কার্ড-এর একদম উপরের দিকে জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি আপনি দেখতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি প্রথম বক্সে বসিয়ে দিন।

Date of birth: আপনি যে জন্ম নিবন্ধন কার্ড তৈরি করেছেন, সেই জন্ম নিবন্ধন কার্ড এ আপনার জন্ম তারিখ দেয়া রয়েছে, সেই জন্ম তারিখ দ্বিতীয় বক্সটিতে যথাযথভাবে বসিয়ে দিন।

অর্থাৎ এখানে থাকা দ্বিতীয় বক্সটিতে আপনার জন্ম নিবন্ধন তারিখ বসিয়ে দিন।

The Answer is: এরকম একটি বক্স আপনি একদম সর্বশেষে দেখতে পারবেন, এই বক্সটিতে মূলত আপনাকে উপরে যে ছবি দেয়া হয়েছে, সেই ছবিতে যে সংখ্যাগুলো রয়েছে সেই সংখ্যাগুলি দিতে হবে।

এখানে যদি দুইটি সংখ্যার যোগফল আপনার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তাহলে সে যোগফল বসিয়ে দিন কিংবা অন্য যে কোনো রকমের ছোটখাটো ম্যাথমেটিক্যাল অপারেশন সম্পর্কে জানতে চাইলে, তার উত্তর বক্সটিতে বসিয়ে দিন।

এই বক্স যথাযথভাবে ফিলাপ করার পরে, একদম সর্বশেষে , Search নামের যে বাটন রয়েছে সেই বাটনটির উপরে ক্লিক করতে হবে।

আপনার ফিলাপকৃত সমস্ত ইনফরমেশন যদি সঠিক থেকে থাকে, তাহলে পরবর্তী পেইজে রিফ্রেশ হয় আপনাকে আপনার বার্থ ইনফরমেশন দেখিয়ে দেয়া হবে।

আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি কিংবা আপনার জন্ম রিলেটেড ইনফর্মেশন যদি তাদের স্টোরেজে জমা থাকে, তাহলে আপনি যথাযথভাবে সেই ইনফরমেশন গুলো সম্পর্কে দেখে নিতে পারবেন।

আর উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি চাইলে খুব সহজে অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক করে নিতে পারবেন৷

আরেকটি উপায় জন্ম নিবন্ধন যাচাই

এছাড়াও আপনি চাইলে আরেকটি ভিন্ন উপায়ে খুব সহজে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন বা জন্ম নিবন্ধন চেক করে নিতে পারবেন।

কোন রকমের রি ক্যাপচা কিংবা সিকিউরিটি জনিত সমস্যা ছাড়া, আপনি যদি কয়েকটি স্টেপ ফলো করার মাধ্যমে, মাত্র কয়েক সেকেন্ডে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে চান, তাহলে নিম্নলিখিত লিংক ভিজিট করতে পারেন।

Birth Check

উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করার মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং জন্মতারিখ দেয়ার মাধ্যমে খুব সহজে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনার সময় পূর্বের চেয়ে আরো বেশি বেঁচে যাবে এবং খুব সহজে আপনি যে কারো জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারবেন।

মূলত উপরে উল্লেখিত দুইটি উপায়ের মধ্যে থেকে যে কোন একটি উপায়, কিংবা এই দুটি উপায়ে-ই আপনি চাইলে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারেন।

অনলাইন বার্থ সার্টিফিকেট চেক করার সুবিধা

আপনি যদি অনলাইনে বার্থ সার্টিফিকেট চেক করে নেন, তাহলে এই অনলাইনের মাধ্যমে চেক করার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন রকমের সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারেন।

এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলোর মধ্যে থেকে উল্লেখযোগ্য একটি হলো, অনলাইনের মাধ্যমে আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নেন, তাহলে আপনি এই সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে হয়েছে কিনা।

কারণ, আপনার জন্ম নিবন্ধন যদি অনলাইন না হয়ে থাকে তাহলে আপনি এই স্টোরেজে আপনার জন্ম নিবন্ধন রিলেটেড ইনফরমেশন গুলো দেখতে পারবেন না।

এছাড়াও আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন যাচাই কৃত সমস্যার মধ্যে না পড়তে চান, তাহলে আপনি সহজে অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিতে পারেন।

অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার আরেকটি ভালো সুবিধা হল, অনলাইনের মাধ্যমে আপনি যদি এটি যাচাই করে নেন, তাহলে আপনি মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে যাচাই করে নিতে পারেন।

এতে আপনার সময় বাঁচবে এবং যেকোনো সময় আপনি যেকারো নিবন্ধন যাচাই করে নেয়ার মতো যোগ্যতা অর্জন করতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Share via
Copy link