ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম | ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয়?

একটি মাত্র ফেসবুক পেজ যা কিনা হতে পারে ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার বিজনেস এর প্রোডাক্ট প্রমোট করার একমাত্র হাতিয়ার; অথবা আপনার সমস্ত ফ্যান ফলোয়ার্স দের সাথে কমিউনিকেশন করা একটি যুগান্তকারী পন্থা।

তবে আমরা অনেকেই ফেসবুক পেজ সম্পর্কে খুব বেশি একটা ধারণা রাখিনা; আজকের এই পোস্টটিতে আমি বিস্তারিত আলোচনা করব ফেসবুক পেজ সম্পর্কে।

 

ফেসবুক পেজ আসলে কি?

 

ফেসবুক পেজ হল; ফেসবুকে লঞ্চ করা একটি যুগান্তকারী ফিচার, যা আপনি বিভিন্নভাবে ব্যবহার করতে পারেন আপনার নানা ধরনের কাজ সম্পাদনের জন্য।

ফেসবুক বিজনেস পেজ ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার সমস্ত প্রোডাক্ট আপনার কাস্টমারদের সামনে ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

এছাড়াও আপনি যদি কোন সেলিব্রিটি হয়ে থাকেন তাহলে আপনার যে সমস্ত ফ্যান ফলোয়ার্স রয়েছে তাদের সাথে আপনি খুব সহজেই একটিমাত্র ফেসবুক পেইজ এর মাধ্যমে কমিউনিকেট করতে পারেন।

 

ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম

 

আপনি যদি ফেসবুক পেইজ এর সমস্ত সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমত একটি ফেসবুক পেজ খুলতে হবে; এটা একদম ফ্রি।

আপনি চাইলে দুই ধরনের ফেসবুক পেজ খুলতে পারবেন।

  • সাধারণ ফেসবুক পেজ
  • বিজনেস ফেসবুক পেজ

এই দুই ধরনের ফেসবুক পেজ এর মধ্যে থেকে আপনি যদি একটি বিজনেস ফেসবুক পেইজ খোলেন;তাহলে আপনি খুব বেশি রকমের সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনি চাইলে ফেসবুক বিজনেস পেজ এর মাধ্যমে মনিটাইজেশন এনাবেল করতে পারবেন এবং এখান থেকে খুব বেশি পরিমানে আয় করতে পারবেন।

শুধু তাই নয়; আপনি যদি চান আপনার ফেসবুক পেজকে ভিআইপি ফেসবুক পেজে পরিণত করার জন্য ব্লু ভেরিফিকেশন badge যুক্ত করতে; তাহলে আপনাকে অবশ্যই আপনার পেইজটিকে বিজনেস পেজে কনভার্ট করতে হবে।

নিচের আর্টিকেল থেকে আপনি চাইলে দেখে আসতে পারেন, কিভাবে খুব সহজে একটি ফেসবুক বিজনেস পেজ খুলতে হয়; যাতে করে আপনি সমস্ত সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারেন।

স্বল্প সময়ে তৈরী করুন ফেসবুক বিজনেস পেজ

আপনি উপরে উল্লেখিত স্টেপগুলো যখন ফলো করে নিবেন তখন আপনি খুব সহজে ফেসবুক পেজ খুলতে পারবেন

আর যখন আপনি ফেসবুক পেজ খোলার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করে নেবেন; তখন আপনি এখানে থাকা সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

 

ফেসবুক পেজ সেটিং

 

আপনার ফেসবুক পেইজ যদি আপনি খুব বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছাতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই ফেসবুক পেজ সেটিং গুলো সফলভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

ফেসবুক পেজ সেটিং এর মধ্যে খুব আহামরি কোনো বিষয় বস্তু উল্লেখিত নয়; এখানে যে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ ফেসবুক পেজ সেটিং রয়েছে সেগুলো আপনি সহজেই করতে পারেন।

আপনি যদি ফেসবুক পেজ সেটিং করতে চান তাহলে নিচের দেয়া লিংক থেকে ভিজিট করে ফেসবুক পেজ সেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন।

জানেন কি ফেসবুক পেজের এই গুরুত্বপূর্ণ সেটিং গুলো সম্পর্কে?

আশাকরি উপরে উল্লেখিত আর্টিকেল ভালোভাবে বুঝে নেয়ার কারণে ; আপনি ফেসবুক পেজ এ যে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ সেটিং রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিয়েছেন।

 

ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয়?

 

ফেসবুক পেজ আপনি চাইলে আপনি এবং আপনার কয়েকজন বন্ধু বান্ধব একসাথে মিলে কন্ট্রোল করতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনি চাইলে ফেসবুক পেইজের কন্ট্রোল সেন্টারে বিভিন্ন রকমের যে ফিচারস রয়েছে সেগুলো সহযোগিতায় আপনার বন্ধু-বান্ধবদেরকে পেইজে কাজে নিয়োজিত করতে পারেন।

এক্ষেত্রে যদি মাল্টিপল বন্ধুবান্ধবকে আপনার ফেসবুক পেইজের অথর্শিপ নিয়োগ দেয়ার কথা ভাবেন; তাহলে আপনাকে প্রথমে ফেসবুক পেজ সেটিং অপশনে যেতে হবে।

যখন আপনি ফেসবুক পেজ সেটিং অপশনে যাবেন তখন আপনাকে এখান থেকে Page Roles নামের অপশন রয়েছে সেটি সিলেক্ট করে নিতে হবে; এবং তারপরে আপনার যে বন্ধুকে এখানে যুক্ত করতে চান তাকে সার্চ করে বের করতে হবে।

"<yoastmark

আপনি চাইলে আপনার বন্ধুবান্ধবকে এখানে বিভিন্ন রকমের ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করতে পারবেন; যার মানে হল আপনি চাইলে তাদের সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে কিংবা কমিয়ে দিতে পারেন।

এক্ষেত্রে ফেসবুক পেইজে মূলত পাঁচটি ভিন্ন ভিন্ন সেক্টর রয়েছে, যেগুলোর মধ্যে থেকে আপনি আপনার বন্ধু-বান্ধব কেউ যেকোনো একটি সেক্টরের অধীনে নিয়োজিত করতে পারেন।

 

ফেসবুক পেজ প্রমোট করার নিয়ম

 

আপনি যদি আপনার ফেসবুক পেজ স্বল্প সময়ে খুব বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চান এবং আপনার ফ্যান ফলোয়ার্স বৃদ্ধি করতে চান; তাহলে আপনি ফেসবুক পেজ প্রমোট করবেন।

আপনি যদি ফেসবুক পেজ প্রমোট করেন তাহলে খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে কিছু ডলার খরচ করার মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে আপনার পেইজটিকে পৌঁছে দিতে সক্ষম হবেন।

এই কাজটি আপনি যখন করবেন; তখন আপনার আশেপাশে কিংবা আপনার লোকেশন এ থাকা সমস্ত বন্ধু-বান্ধবেরা আপনার ফেসবুক পেইজটি তাদের ফেসবুক হোমপেজে দেখতে পারবে।

এবং যদি তারা আপনার ফেসবুক পেইজের স্ট্যাটাসগুলো কিংবা প্রোডাক্ট গুলো পছন্দ করে এবং নোটিফিকেশন পেতে চায় তাহলে অবশ্যই তারা আপনার পেইজটিকে লাইক কিংবা ফলো করে রাখতে বাধ্য।

ফেসবুক পেজ বুস্ট করতে হলে মূলত আপনাকে প্রথমেই আপনার ফেসবুক পেইজের হোমপেজে চলে যেতে হবে; এবং তারপরে Create Post নামে যে বাটন রয়েছে তাতে ক্লিক করতে হবে।

এবার create পোস্ট অপশন এর মধ্যে আপনি আপনার পেইজ সম্পর্কে যে সমস্ত বিষয়বস্তুগুলো লিখতে চান কিংবা যেগুলো পোস্ট করতে চান সেগুলো cover করে নিন, এবং একটু নিচের দিকে যে Boost Post অপশন রয়েছে সেটি সিলেক্ট করে নিন।

যখনই আপনি বুষ্ট নামের যে অপশন রয়েছে তাতে ক্লিক করবেন; তখন আপনি এখানে থাকলে নানা রকম প্লেন যে গুলো রয়েছে সেগুলো আপনার পছন্দমত সিলেক্ট করে নিতে পারেন।

আপনি যদি আপনার পেজটিকে খুব বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চান; তাহলে আপনাকে এখানে সবচেয়ে বেশি ডলারের যে প্ল্যান রয়েছে সেটি সিলেক্ট করে নিতে হবে।

এছাড়াও আপনি আপনার ফেসবুক পেইজটি কে কত দিনের জন্য প্রমোট পোস্ট করতে চান সেটিও আপনি চাইলে এখান থেকে সিলেক্ট করে নিতে পারেন।

"<yoastmark

ফেসবুক পেজ প্রমোট বুস্ট করার নিয়ম মূলত উপরে উল্লেখিত নিয়মটি; যার মাধ্যমে আপনি চাইলে আপনার পেজটিকে খুব বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে সহজে পৌঁছে দিতে পারেন।

ফেসবুক পেজ লিংক কিভাবে পরিবর্তন করব?

 

আপনি যদি আপনার ফেসবুক পরিবর্তন করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমে আপনার ফেসবুক পেইজের হোমপেজে চলে যেতে হবে এবং তারপরে Edit Page info অপশনটিতে ক্লিক করার পরে আপনি আপনার ফেসবুক পেইজের লিঙ্ক পরিবর্তন করতে পারবেন।

লিংক পরিবর্তন করার ক্ষেত্রে আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেইজের নাম রিলেটেড কোন শব্দ ব্যবহার করতে পারেন; যাতে করে যে কেউ সহজে লিংক টাইপ করার মাধ্যমে আপনার ফেসবুক পেইজে ভিজিট করতে পারে।

"<yoastmark

আপনি যখনই আপনার ফেসবুক পেইজের লিঙ্ক পরিবর্তন করবেন তখন আপনার পেইজের লিঙ্ক মূলত fb.com/youlink এভাবে হবে; এবং যে কেউ এই লিঙ্ক এড্রেসবারে টাইপ করলে আপনার পেইজে ভিজিট করতে পারবে।

 

ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন

 

ভুলবশত আপনি যদি আপনার ফেসবুক পেইজের নাম ভুল কিছু দিয়ে দেন; তাহলে আপনি নিশ্চয়ই এই ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করতে চাইবেন।

আমরা অনেকেই ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন করতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে যায়; অর্থাৎ দেখা যায় যে ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করার সময় এটি পরিবর্তন হয় না।

এক্ষেত্রে ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন না হওয়ার অনেকগুলো কারণের মধ্যে একটি হতে পারে; নাম পরিবর্তনে আপনার জ্ঞানের ঘাটতি; আপনি যদি ফেসবুক পেইজ নাম পরিবর্তন করতে গিয়ে তাদের পলিসি অমান্য করেন তাহলে কিন্তু এটা কখনোই সম্ভব নয়।

এজন্য নাম পরিবর্তনের জন্য আপনাকে অবশ্যই ফেসবুক কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড ভালোভাবে পড়ে নিতে হবে এবং তারপরে নাম পরিবর্তন করতে হবে; অন্যথায় কখনোই আপনি ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন করতে পারবেন না।

আপনি যদি আপনার ইচ্ছামত ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন করতে চান তাহলে নিচের দেয়া আর্টিকেল দেখে আসুন।

ফেসবুক পেজের নাম পরিবর্তন করুন যতবার ইচ্ছা

আশা করি এবার আপনি সফলভাবে ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন করতে পেরেছেন; আর এভাবেই আপনি চাইলে আনলিমিটেড সময় ফেসবুক পেজ নাম পরিবর্তন করতে সক্ষম হবেন।

 

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায়

 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ফেসবুক পেজ ব্যবহার করার মাধ্যমে আয় করতে চান; আসলেই আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারেন।

পেজ থেকে আয় করার জন্য আপনাকে কয়েকটি কয়েকটি স্টেপ ফলো করতে হয়; অথবা কয়েকটি ট্রিক্স ফলো করার মাধ্যমে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার কাজ সম্পাদন করতে হয়।

এক্ষেত্রে মিনিমাম রিকোয়ারমেন্ট হলো অবশ্যই আপনার ফেসবুক পেইজের লাইক পাঁচ হাজার বা তার চেয়ে বেশি হতে হবে; কারণ কাস্টমার না থাকলে আপনি নিশ্চয়ই এখান থেকে আয় করতে পারবেন না।

যখনই আপনার ফেসবুক পেইজের ফ্যান ফলোয়ার্স বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি সফলভাবে এখান থেকে বিভিন্ন উপায়ে আয় করতে পারবেন; এর মধ্যে থেকে পাঁচটি উপায় নিচে বর্ণনা করা হয়েছে।

৫ টি উপায়ে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করুন|

আশাকরি উপরোক্ত আর্টিকেল এর মাধ্যমে ফেসবুক পেজ থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় বা ফেসবুকে পেজ থেকে টাকা ইনকামের যে সমস্ত পন্থা রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে আপনি জেনে নিতে পেরেছেন।

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায় মূলত শুধুমাত্র উপরে উল্লেখিত উপায়গুলো নয়; আপনি ইন্টারনেটে ভালোভাবে research করার মাধ্যমে অন্যান্য আয় করার পন্থা গুলো জেনে নিতে পারেন।

 

ফেসবুক পেজ ভেরিফাই কিভাবে করবেন?

 

আপনার ফেসবুক পেজকে যদি ভিআইপি ফেসবুক পেজে পরিণত করতে চান; তাহলে আপনাকে অবশ্যই আপনার ফেসবুক পেইজ ভেরিফাই করে নিতে হবে।

আপনি যদি ফেসবুক পেজ ভেরিফাই করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমত আপনার ফেসবুক পেইজটি বিজনেস পেইজ হিসেবে কনভার্ট করতে হবে।

আমি যেহেতু পোস্টের প্রথমেই আলোচনা করেছি যে কিভাবে আপনি খুব সহজে ফেসবুকে একটি বিজনেস পেজ তৈরি করতে পারবেন; তাই আপনার এই সম্পর্কে আর কোন সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

ফেসবুক পেজ ভেরিফাই করার জন্য আপনাকে প্রথমে নিচের দেওয়া লিংকে ভিজিট করতে হবে এবং তারপর এখানে থাকা সমস্ত ইনফরমেশন গুলো ফিলাপ করতে হবে।

ফেসবুক পেজ ভেরিফাই

যখনই আপনি লিংকে ভিজিট করবেন তখন আপনি এখানে আপনার ফেসবুক পেইজ সম্পর্কিত সমস্ত ইনফরমেশন গুলো দিতে পারবেন; এবং তারপরে ফেসবুক পেজ ভেরিফাই এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমে আপনার ফেসবুক পেইজের লিঙ্ক দিতে হবে এবং তার পরে ঐ পেইজ সম্পর্কিত বিভিন্ন রকমের ডকুমেন্টস তাদের কাছে প্রেরণ করতে হবে।

"<yoastmark

এবং যখনই আপনার সমস্ত ইনফরমেশন গুলো ফেসবুক অথরিটি টিমের কাছে প্রেরণ করে দিবেন তখন যদি সব কিছু ঠিক থাকে তাহলে আপনি ফেসবুক পেজ ভেরিফাই badge পেয়ে যাবেন।

 

ফেসবুক পেজ ডিলিট করার নিয়ম

 

আপনার ফেসবুক পেইজটি যদি অকার্যকর হয়ে যায়; তাহলে আপনি নিশ্চয়ই ফেসবুক পেজ ডিলিট করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাইবেন।

আপনি যদি মাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে আপনি ফেসবুক ইউজ করতে চান তাহলে নিচের আর্টিকেলটি পড়ে আসুন; এতে ফেসবুক পেজ ডিলিট করার সম্পূর্ণ নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

 

ফেসবুক পেজ কিভাবে ডিলিট করে জেনে নিন

ফেসবুক পেজ ডিলিট সম্পন্ন হওয়ার জন্য আপনাকে মূলত 14 দিন অপেক্ষা করতে হবে; ওই সময় গুলোতে আপনার ফেসবুক পেইজ Delection mode পেন্ডিং এ থাকবে।

এবং আপনি চাইলে এই 14 দিনের মধ্যে যেকোনো একটি দিন আপনার ফেসবুক পেজ ডিলিট হওয়া থেকে ক্যানসেল করতে পারেন; এবং এটি আবার পুনরায় একটিভ করে নিতে পারেন।

আর এভাবেই ফেসবুক পেজ ডিলিট করতে হয়; আশা করি এই গাইডলাইন আপনার উপকারে আসবে; এবং ফেসবুক পেইজ মার্কেটিংয়ে আপনাকে সাহায্য করতে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × one =

close
Scroll to Top
Share via
Copy link