[Hot Post] ফ্রীতে স্পনসর্শিপ কনটেন্ট নিন | (প্রতিটি 100 ডলার)

আমাদের মধ্যে যে যে বা যাদের ওয়েবসাইট  বিদ্যমান রয়েছে কিন্তু তারপরেও কোন রকমের স্পনসর্শিপ অথবা স্পন্সার আর্টিকেল পাচ্ছেন না তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট টি।

এই আর্টিকেলের মধ্যে এমন একটি ওয়েবসাইটের কথা মেনশন করা হবে, যারা আপনাকে বিনামূল্যে স্পনসর্শিপ কন্টেন্ট দিবে এবং প্রত্যেকটি কনটেন্ট এর পরিবর্তে প্রচুর পরিমাণে ডলার আয় করতে পারবেন।

অনেক সময় মাত্র একটি আর্টিকেল পাবলিশ করার মাধ্যমে আপনি 100 ডলার আয় করতে পারবেন এবং তাদের পলিসি অন্যান্য ওয়েবসাইট এর চেয়ে রীতিমতো সহজ।

শুরুতেই জেনে নেয়া যাক এই ওয়েবসাইটের কিছু ফিচার সম্পর্কে যার কারণে আপনি এই ওয়েবসাইট ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ হতে পারবেন।

Flyout আসলে কি?

Flyout হলো এমন একটি প্লাটফর্ম যে প্ল্যাটফর্ম আপনার ওয়েবসাইটের স্পনসর্শিপ কনটেন্ট দিয়ে ওয়েবসাইট মনিটাইজ করতে সহায়তা করবে।

এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি প্রায় প্রতিদিনই একটি স্পনসর্শিপ কনটেন্ট পেতে পারেন, যার সর্বনিম্ন মূল্য হবে 15 ডলার।

এক্ষেত্রে আপনি যখনই আপনার ওয়েবসাইটে অনুমোদন নিয়ে নিবেন, তখন সাইটের ড্যাশবোর্ডে নতুন কোন স্পনসর্শিপ কনটেন্ট আসলে তার নোটিফিকেশন দেখতে পারবেন।

এবং নতুন কনটেন্টের নোটিফিকেশন পাওয়ার পরেই এই কনটেন্ট হুবহু কপি করে নিয়ে আপনার ওয়েবসাইটে নিঃসন্দেহে পাবলিশ করতে পারবেন। আর  পাবলিশ সম্পন্ন হলেই তারা নির্দিষ্ট পরিমাণে এমাউন্ট আপনার একাউন্টে জমা করে দিবে।

এই পাবলিশারের কাছ থেকে যেকোনো ওয়েবসাইট এর মালিক প্রতি মাসে প্রায় এক হাজার ডলার বা তার চেয়েও বেশি ডলার আয় করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইটে যখন আপনি সাইন আপ করবেন তখন তাদের কাছে আপনার ওয়েবসাইট রিভিউর জন্য পাঠাবেন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে তারা আপনার সাইটে এপ্রুভ করে দিবে।

শুরুতেই দেখে নেয়া যাক আপনি যদি স্পনসর্শিপ কনটেন্ট নিতে চান, তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে কিরকম রিকোয়ারমেন্ট এর প্রয়োজন হবে যাতে করে এই সাইট থেকে আপনি অ্যাপ্রভাল নিতে পারবেন।

Flyout অ্যাপ্রভাল নেয়ার রিকোয়ারমেন্ট

যদি Flyout ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ্রভাল নিতে চান এবং তাদের ওয়েবসাইটে তাকে স্পনসর্শিপ কনটেন্ট আপনার সাইটে পাবলিশ করতে চান, তাহলে যে সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট এর প্রয়োজন হবে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিন।

  1. সাইটে 100 টি কনটেন্ট থাকতে হবে। যে ওয়েবসাইট থেকে আপনি অনুমোদন নিতে চান সেই ওয়েবসাইটে কমপক্ষে 100 টি আর্টিকেল থাকতে হবে।
  2. শেষ 30 দিনে ওয়েবসাইটের ভিজিটর কমপক্ষে 10 হাজার হতে হবে্ যা বর্তমানে যেকোনো ওয়েবসাইটের জন্য কোন ব্যাপার নয়।
  3. ওয়েবসাইটের একটি ভালো ডিজাইন থাকতে হবে। সাইটের মধ্যে About Us, Contact Us, Privacy Policy etc. পেইজ থাকতে হবে।
  4. আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে 20 পার্সেন্ট এরও অধিক স্পনসর্শিপ কনটেন্ট থাকলে চলবে না।

যে সমস্ত সাইটে Flyout অনুমোদন দিবে না

  1. যেকোনো মাইক্রোনিস ওয়েবসাইট।
  2. ডাউনলোডিং ওয়েবসাইট। যেমন গেম ডাউনলোড করা, অ্যাপস ডাউনলোড করা কিংবা অন্য যে কোন ডাউনলোডিং সাইট।
  3. ডিল এবং কুপন কোড সংক্রান্ত ওয়েবসাইট।
  4. পরীক্ষার রেজাল্ট এবং জব রিলেটেড সাইট।
  5. অ্যাডাল্ট ওয়েবসাইট।
  6. ইভেন্ট ব্লগিং ওয়েবসাইট।
  7. শুধুমাত্র স্ট্যাটাস পাবলিশিং ওয়েবসাইট।
  8. শুধুমাত্র টুলস প্রভাইডিং ওয়েবসাইট।

উপরে উল্লেখিত ক্যাটাগরি রিলেটেড ওয়েবসাইটে আপনি কখনোই Flyout থেকে অনুমোদন নিতে পারবেন না। আপনার ওয়েবসাইট যদি এই রিলেটেড হয় তাহলে এড়িয়ে চলুন।

এছাড়াও Flyout বর্তমানে blogger.com ওয়েবসাইটে কোন রকমের অ্যাপ্রভাল দেয় না। আপনি যদি কোনো কাস্টম ডোমেইন এর ব্যবহার করেন তাহলে blogger.com থেকে অনুমোদন পাবেন না।

আপনার ওয়েবসাইটকে Flyout থেকে অ্যাপ্রভাল নেয়ার জন্য যে সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট সম্পর্কে জানা প্রয়োজন সেগুলো উপরে আলোচনা করা হলো।

এবার আপনি যদি মনে করেন আপনার ওয়েবসাইট এ সংক্রান্ত প্রাইভেসি পলিসি আওতাধীনে পড়ে, তাহলে আপনি Flyout রিকুয়েস্ট পাঠাতে পারেন।

কিভাবে Flyout অ্যাকাউন্ট খুলবেন?

আপনি যদি Flyout এমন একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে চান, যে একাউন্ট অবশ্যই অ্যাপ্রভাল করে দিবে তাহলে প্রথমে নিম্নলিখিত লিংকে ভিজিট করুন।

Flyout

উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করার পরে sign Up নামের বাটনে ক্লিক করুন তাহলে আপনাকে অন্য আরেকটি পেইজ এর ডাইরেক্ট করে নেয়া হবে।

যখনই সাইন আপ বাটনে ক্লিক করে দিবেন তখন অন্য আরেকটি পেইজ রি-ডাইরেক্ট করে নেয়া হবে। যেখানে আপনার ওয়েবসাইটের লিঙ্ক দিতে হবে।

ওয়েবসাইটের লিংক টাইপ করার ক্ষেত্রে http/https সহকারে টাইপ করুন।

সাইটের এ্যাড্রেস টাইপ করার পরে “Check Ability” বাটন এর উপরে ক্লিক করে এবিলিটি চেক করে নিন।

স্পনসর্শিপ কনটেন্ট
স্পনসর্শিপ কনটেন্ট

এবার আপনার ওয়েবসাইটের ওনারশিপ ভেরিফাই করে নিতে হবে। আপনার ওয়েবসাইটে  অনারশিপ ভেরিফাই করার মত অনেকগুলো অপশন এখানে পেয়ে যাবেন।

ওয়েবসাইটের ওনারশিপ ভেরিফাই করার জন্য verify with html tag অপশনে দেখা কোডগুলো কপি করে নিন এবং তারপরে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের ড্যাশবোর্ডে লগইন করুন।

স্পনসর্শিপ কনটেন্ট
স্পনসর্শিপ কনটেন্ট

ওয়েবসাইটে ড্যাশবোর্ডে লগইন করার পরে Appearance – Theme editor- header.php এই লোকেশনে চলে যান এবং তারপরে <head> এরপরে কপিকৃত কোড বসিয়ে দিন এবং তারপরে সেভ করে দিন।

যখনই সেই কাজটি কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন পুনরায় Flyout এর ভেরিফিকেশন পেজে চলে আসুন এবং তারপরে Verify নামের বাটনে ক্লিক করে ভেরিফাই স্ট্যাটাস চেক করে নিন।

এবার যদি সব কিছু ঠিক থাকে তাহলে Flyout আপনার ওয়েবসাইট ভেরিফাইড হয়ে যাবে, এবং তার পরে আপনাকে অন্য আরেকটি পেইজে রি-ডাইরেক্ট করে নেয়া হবে।

Process 2

ভেরিফাই এর কাজ খুব সহজে করার জন্য এখানে এইচটিএমএল ফাইল রয়েছে সেই ফাইল আপনার সিপেনেলে আপলোড দিয়ে ভেরিফাই করা সম্পন্ন করে নিতে পারেন।

একদম সহজ ভাবে এইচটিএমএল ফাইল আপনার চ্যানেলে আপলোড দেয়ার জন্য প্রথমে Verfiy with html file অপশনে ক্লিক করে ফাইলটি ডাউনলোড করে নিন।

স্পনসর্শিপ কনটেন্ট
স্পনসর্শিপ কনটেন্ট

যখনই ভেরিফিকেশন ফাইল ডাউনলোড করার সম্পূর্ণ হয়ে যাবে তখন সুজাসুজি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস এর সি-প্যানেলে লগইন করে নিন। এবং তারপরে রুট ডাইরেক্টরি তে এই ফাইলটি আপলোড করে দিন।

এইচটিএমএল ফাইল আপলোড করার জন্য প্রথমে সি-প্যানেলে লগইন করুন এবং তারপরেই file manager এ ক্লিক করুন। ফাইল ম্যানেজার এ ক্লিক করার পরে public_html ক্লিক করে এইচটিএমএল ফাইল আপলোড করে দিন।

স্পনসর্শিপ কনটেন্ট
স্পনসর্শিপ কনটেন্ট

যখনই ফাইল যথাযথ স্থানে আপলোড করে দিবেন তখন পুনরায় পূর্বের পেজে চলে আসুন এবং ভেরিফাই বাটনে ক্লিক করার মাধ্যমে ভেরিফাইড সম্পন্ন করে নিন।

ভেরিফাই করা সম্পন্ন হয়ে গেলে আপনাকে অটোমেটিকলি আরেকটি পেইজ এর ডাইরেক্ট করে নেয়া হবে। এখানে পেইজে ডিটেলস আলোচনা করতে হবে অর্থাৎ আপনি প্রত্যেকটি স্পন্সর পোস্ট এর জন্য কত ডলার নিতে চান সেটি এখানে মেনশন করতে পারবেন।

Category: এই অপশনটিতে ক্লিক করার পরে আপনার ওয়েবসাইটে যে ক্যাটাগরি রয়েছে সেই ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন।

Enter Contact number: আপনার পার্সোনাল ফোন নাম্বার রয়েছে সেই ফোন নাম্বার এখানে লিখে দিন।

Price Per post: প্রত্যেকটি স্পন্সর পোস্ট এর জন্য কত ডলার নিতে চান সেটি এখানে মেনশন করুন; এবং একদম সর্বশেষে Submit Website বাটনে ক্লিক করে দিন।

স্পনসর্শিপ কনটেন্ট
স্পনসর্শিপ কনটেন্ট

সমস্ত ডিটেইলস যথাযথভাবে দেয়ার পরে একদম সর্বশেষে এখানে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে। একাউন্ট তৈরীর কাজ ডাইরেক্টলি গুগোল একাউন্ট কিংবা ফেসবুক আইডি দিয়ে করতে পারবেন অথবা ইনফর্মেশন দেয়ার মাধ্যমে করতে পারবেন।

Full name: যে নামে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান সেই নাম এখানে মেনশন করে দিন।

Email Address: এই অপশনটিতে একটি ইমেইল এড্রেস মেনশন করুন। মনে রাখবেন আপনার প্রদত্ত ইমেল এড্রেসে কনফার্মেশন মেইল চলে যাবে।

Enter Password: একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড নির্বাচন করে দিন এবং পরিশেষে Sign up বাটনে ক্লিক করে একাউন্ট তৈরীর কাজ সম্পাদন করে নিন।

যখনই একাউন্ট তৈরীর কাজ সম্পাদন হয়ে যাবে তখন আপনি এই একাউন্টে ড্যাশবোর্ডে এক্সেস নিতে পারবেন এবং আপনার ওয়েবসাইটের বর্তমান কি অবস্থা রয়েছে সেই অবস্থা দেখতে পারবেন।

Please Note: যে জিমেইল এড্রেস দিয়ে একাউন্ট তৈরি করেছেন। সেই জিমেইলে একটি কনফার্মেশন মেইল চলে যাবে, তাতে ক্লিক করে একাউন্ট কনফার্ম করে নিন।

এবার যদি সব কিছু ঠিক থাকে তাহলে একদিনের মধ্যেই আপনার একাউন্ট অনুমোদন কিংবা রিজেক্ট করে দিবে তবে আপনার অ্যাকাউন্ট রিভিউ করার জন্য অনেক ক্ষেত্রে বেশি সময় নিতে পারে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + fifteen =

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap