অনলাইনে ইনকাম করার পরিপূর্ণ তাবিজ (Step by Step)

 

বর্তমান সময়ে আমরা যে বা যারা ইন্টারনেটের সাথে সম্পৃক্ত আছি, কমবেশি সবাইরই  মনোবাসনা একটাই; আর সেটা হলো – অনলাইনে ইনকাম।

আপনি হয়তো ইতিমধ্যে এই সম্পর্কে পুরোপুরি জেনে নিতে পেরেছেন যে অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব। এবং অনেকে আছে যারা অনলাইন থেকে প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারেন।

আর কোনরকম ইন্ট্রোডিউস ছাড়াই অনলাইনে ইনকাম করার যে সমস্ত প্রসেস রয়েছে কিংবা পদ্ধতি রয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা শুরু করা যাক।

 

কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায়?

 

কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়? এরকম প্রশ্ন উপায় আছে আমাদের মনের মধ্যে ঘুরপাক খায়। আমরা সকলেই সহজ উপায়ে আয় করতে চাই। এবং রিয়াল ট্রাস্টেড ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে চাই যাতে করে আমরা পেমেন্ট পায়।

অনলাইন থেকে আয় করার পন্থা মূলত দুইটি। যার মধ্যে থেকে একটি হল স্বাধীনভাবে আয় করা; আর অন্যটি হলো অন্যের অধীনে থেকে কাজ করা। স্বাধীনভাবে আয় করা এখানে সবচেয়ে বেশি পছন্দের বিষয়।

অন্যের অধীনে না থেকে আপনি যদি আয় করতে চান তাহলে যে সমস্ত বিষয় গুলো সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে হবে সেগুলো হলোঃ

  • ফ্রিল্যান্সিং।
  • ব্লগ সাইট তৈরি।
  • যে কোনো রকমের মার্কেটিং এর সাথে সম্পৃক্ত হওয়া।

আপনি যদি অন্যের অধীনে থেকে কাজ করতে চান তাহলে আপনি যে সমস্ত ওয়র্কিং এক্সপেরিয়েন্স আর মুখোমুখি হবেন সেগুলো হলোঃ

  • অ্যাড দেখে টাকা আয়।
  • ভিডিও দেখে টাকা।
  • বিভিন্ন পিটিসি ওয়েবসাইট।
  • প্রডাক্ট প্রমোশন।
  • লিড কমপ্লিট করা ইত্যাদি।

মূলত উপরে উল্লেখিত কাজগুলো ছাড়াও আরো অনেক কাজ রয়েছে যেগুলো আপনি অনলাইনে অন্যের অধীনে থেকে করেন। মানে আপনি অন্যের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে এই কাজগুলো করেন।

আর আপনি যখন অন্যের অধীনে এই কাজগুলো সম্পাদন করেন তখন আপনি মোট আয়কৃত টাকা থেকে কিছু কমিশন পান। কিন্তু ইচ্ছে স্বাধীন কাজ করলে আপনি কত টাকা আয় করেন ঠিক তত টাকা পেয়ে যান।

অন্যের অধীনে কাজ করে কম টাকা পাওয়ার একটি উল্লেখ্য বিষয় হলোঃ তারা যে ওয়েবসাইট বাবদ খরচ করে সেগুলো পুষিয়ে নেয়ার জন্য আপনাকে কমিশন আকারে টাকা দেয়।

এছাড়া অনলাইন থেকে আয় করার 100 টিরও বেশি আইডিয়া রয়েছে। যে আইডিয়াগুলো আপনি চাইলে নিচের আর্টিকেল থেকে দেখে আসতে পারেন।

সেরা ১০০ টি ইনকাম আইডিয়া | ইনকাম করার উপায় |

 

আশা করি  আপনি নিশ্চয়ই অনলাইনে ইনকাম করার যে যে উপায়ে আছে সে সম্পর্কে জেনে নিতে পেরেছেন। এবার কিভাবে আপনি আয় করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

 

ফ্রি টাকা ইনকাম কি সম্ভব?

 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা কোনো রকমের ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই ফ্রি টাকা ইনকাম করতে চান। ব্যাপারটা কত খিটখিটে লাগে তাইনা?

তবে আমি আপনাকে মোটেও ডি-মোটিভেট করছি না। আপনি চাইলে কোন রকমের ইনভেস্টমেন্ট ছাড়া ফ্রি টাকা ইনকাম করতে পারেন। তবে সেটা সীমিত পরিমাণ” খান ভাই আপনি নিশ্চয়ই জানেন ফ্রী বলতে কিছুই হয় না?:)

তবে আপনি চাইলে কোনো রকমের ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াও ফ্রি টাকা ইনকাম করতে পারেন। ইনভেস্টমেন্ট ছাড়া আপনি মুক্ত স্বাধীন ভাবে মাত্র একটি প্ল্যাটফর্ম এর সাথে টাকা ইনকাম করতে পারবেন আর সেটি হল “ফ্রিল্যান্সিং”

আপনার যদি পূর্বে থেকে যেকোন রকমের কাজের সাথে সম্পৃক্ততা থাকে বা অভিজ্ঞতা থাকে; তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে কোন টাকা খরচ ছাড়াই আয় করতে পারেন।

এছাড়াও আরো অন্যান্য যে সমস্ত পিটিসি ওয়েবসাইট রয়েছে সে ওয়েবসাইটগুলো সহযোগিতায় আপনি ফ্রি টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে পূর্বেই বলেছি আপনি সীমিত পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন।

 

অনলাইনে আয় করার নিয়ম

 

আপনি চাইলে কয়েক শত বা হাজার উপায় অনলাইনে আয় করতে পারেন। তবে নতুন অথবা প্রথমত যে যে উপায়ে যে কেউ আয় করতে পারবে সে সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হবে।

প্রথমেই বলেছি আপনি দুইটি উপায়ে করতে পারেন একটি হলো স্বাধীনভাবে আর অন্যটি হলো অন্যের অধীনে থেকে; স্বাধীনভাবে কাজ করতে হলে আপনার অন্যরকম অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হবে।

তবে অন্যের অধীনে থেকে আপনি যদি কাজ করেন তাহলে আপনার তেমন একটা অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হবে বলে মনে করি না। কারন ঐ সমস্ত ক্যাটাগরিতে এড দেখে ইনকাম; ভিডিও দেখে ইনকাম; এই সমস্ত কাজ গুলো পড়ে।

তবে যেহেতু আপনাকে এখানে নিয়ে এসেছি আমি অনলাইনে আয় করার পরিপূর্ণ গাইড লাইন উপহার দিব বলে তাই সবকিছু নিয়েই আলোচনা করা। এত বক বক করছি বলে রাগে পোস্টটি Skip করবেন না আবার।

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ

 

সর্বপ্রথম যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে সেটি হলো- টাকা ইনকাম করার অ্যাপ।কারন আপনি বিভিন্ন এপস এর সাথে সম্পৃক্ত হয়ে অনলাইনে আয় করতে পারেন।

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ গুলো সহযোগিতায় আপনি চাইলে খুব সহজেই প্রতিদিন 2 থেকে 3 ডলার বা তার চেয়েও কম বেশি আয় করতে পারেন। তবে এই সমস্ত কিছু ডিপেন্ড করবে আপনার উপর এবং ওই অ্যাপসটির উপরে।

অ্যাপ থেকে ইনকাম করার যে প্রসেস রয়েছে সেগুলো অনেকটাইঃ ভিডিও দেখে আয়; অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দেখে আয় করার মধ্যে পড়ে; যা রীতিমতো সহজ এবং যে কেউ করতে পারবে।

অ্যাপ থেকে টাকা ইনকাম করার সর্বশ্রেষ্ঠ যে সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস রয়েছে এবং আইফোনের জন্য যে অ্যাপস রয়েছে সেগুলো নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

টাকা ইনকাম apps

Clipclaps

অনলাইন থেকে আয় করার যে সমস্ত অ্যাপস রয়েছে সে সমস্ত অ্যাপসগুলোকে মধ্যে এটি অন্যতম একটি। এপস টি থেকে আপনি সমস্ত রকমের ফানি ভিডিও দেখে আয় করতে পারবেন।

Image source: Google

কতৃপক্ষ আপনাকে আপনার প্রতিটি হাসির জন্য টাকা পে করতে থাকবে। আপনি যদি ফানি ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন এবং আপনার যদি একটি ব্রডব্যান্ড কানেকশন থাকে তাহলে আপনি অবশ্যই এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে আয় করতে পারবেন।

Earn with song 

আপনি যদি গান শুনতে পছন্দ করেন এবং অবিরত যদি আপনি গান শুনে থাকেন; তাহলে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত অ্যাপসটি ব্যবহার করে গান শুনে আপনি আয় করতে পারবেন।

একটি থেকে গান আপনি চাইলে আপনার লক স্ক্রিনে কিভাবে ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে শুনতে পারবেন; এক্ষেত্রে আপনি গান ওপেন করে আপনার ফোনটিকে রেখে দিতে পারেন।

যখনই গানের সময় কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন অটোমেটিকলি আপনার একাউন্টে ডলার যুক্ত হয়ে যাবে; এবং আপনি এভাবে গান শুনে খুব সহজে আয় করতে পারবেন

বিঃদ্রঃ (মুসলমান হলে এপসটি ব্যবহারের আগে আখিরাতের কথা একবার চিন্তা করে নিবেন.)

zareklamy

আপনি চাইলে এড দেখে; ভিডিও দেখে এবং অন্যান্য সমস্ত উপায় কোন অ্যাপস থেকে আয় করতে চাইলে উপরে উল্লেখিত অ্যাপসটি অবশ্যই ব্যবহার করবেন।

অ্যাপস দেখে আপনি প্রতিদিন চাইলে 5 থেকে 10 ডলার আয় করতে পারবেন। যা অন্যান্য অনলাইন ইনকাম apps তুলনায় খুবই বেশি; তবে এটা ডিপেন্ড করবে আপনার কাজের উপরে।

আপনার যদি একটি ভাল ইন্টারনেট কানেকশন থাকে এবং ফোন কিনবা ট্যাবলেট থাকে; তাহলে আপনি এই এপসটি ব্যাবহার করতে পারেন এবং অনলাইনে ইনকাম শুরু করে দিতে পারেন।

Tvtwo

আপনি যদি ইউটিউব ভিডিও দেখে আয় করতে পছন্দ করেন; তাহলে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত এপসটি ব্যাবহার করবেন। কারণ এই অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব সহজেই ইউটিউব ভিডিও দেখে আয় করতে পারবেন।

আপনি চাইলে অনেকগুলো ভিডিও আপনার ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজিয়ে এই অ্যাপসটির এক্সেস নিয়ে আয় করতে পারেন। এখানে থাকা ভিডিওগুলো ডিউরেশন অনেক বেশি হলেও এতে আপনি অনেক বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

এছাড়াও আরো যে সমস্ত টাকা ইনকাম করার অ্যাপস গুলো সহযোগিতায় আপনি আয় করতে পারবেন; সেগুলোর লিস্ট আমি নিচে দিয়ে দিচ্ছিঃ

উপরে উল্লেখিত অ্যাপসগুলো ডাউনলোড করার আগে অবশ্যই আপনি বর্তমান সময়ে এর রেটিং এবং অন্যান্য ব্যবহারকারীর মন্তব্য দেখে তারপরে ডাউনলোড করবেন।

কারণ এরকম অনেকেরই রয়েছে যারা প্রথমত খুব ভালো সার্ভিসিং দেয় এবং তারপরে ব্যবহারকারীর সাথে অসদাচরণ করে বা পেমেন্ট দিতে চায় না।

 

ভিডিও দেখে টাকা আয়

 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ভিডিও দেখে টাকা আয় করতে চান। অর্থাৎ তাদের ভিডিও দেখা একটা পছন্দের বিষয়।

আপনি অনলাইনে ভিডিও দেখে টাকা আয় করতে পারেন। অনলাইনে ভিডিও দেখে টাকা আয় করার মত এরকম অনেক বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে। যেগুলো আপনাকে প্রতি ভিডিও দেখার জন্য আয় করতে সহায়তা করবে।

Image source: Google

অনলাইনে ভিডিও দেখে আয় করার মত যে সমস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলোর লিস্ট নিচে দেয়া হলঃ

উপরে উল্লেখিত সাইট থেকে আপনি খুব সহজেই ভিডিও দেখে আয় করতে পারবেন। এছাড়াও ভিডিও দেখে আয় করার আরো যে সমস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে জানুন এই পোস্টে

 

অনলাইন ইনকাম সাইট

 

অনলাইন ইনকাম করার সাইট অনেকগুলো রয়েছে; যে সমস্ত ওয়েবসাইটও থেকে আপনি চাইলে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর ভিডিও এবং বিজ্ঞাপন থেকে আয় করতে পারেন।

এই সমস্ত ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে থেকে অনেকগুলো ওয়েবসাইট যেগুলো বিশ্বাসযোগ্য সে সমস্ত সাইটগুলো হলো বিদেশি; বাংলাদেশি অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলো পুরোপুরি বিশ্বাস করার মতো নয়।

অনলাইন ইনকাম সাইট যে সমস্ত মার্কেটপ্লেস এভেলেবেল রয়েছে; সেগুলোর মধ্যে থেকে বেশ কয়েকটা ওয়েব সাইট থেকে আপনি প্রতিদিন খুব বেশি পরিমাণে ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন ইনকাম করার যে ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলোর লিস্ট নিচে দেয়া হল; এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলো থেকে আপনি যে যে উপায়ে আয় করতে পারবেন সেগুলো হলো।

  • ভিডিও দেখে।
  • অ্যাড দেখলে।
  • সার্ভে কমপ্লিট করে।
  • অন্য বন্ধুকে রেফার করে।
  • লটারির মাধ্যমে ইত্যাদি।

 

অনলাইন ইনকাম সাইট ২০২০

 

আপনি চাইলেও ওয়েবসাইট গুলোর মাধ্যমে খুব সহজে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন। এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলোর কাজের দ্বারা খুবই সহজ।

 

টাকা ইনকাম করার গেম

 

আপনি যদি একজন নেহাত গেম প্রেমী হয়ে থাকেন; তাহলে নিশ্চয়ই এরকম অনেক গেম রয়েছে যে সমস্ত গেম খেলার মাধ্যমে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা অবসর সময়ে গেম খেলতে পছন্দ করেন; কিন্তু এই সমস্ত গেম গুলো থেকে কোন রকমের প্রফিট লক্ষ্য করেন না। এগুলো শুধুমাত্র অবসর সময় এর হাতিয়ার হিসেবে কাজ করে।

গেম খেলে টাকা আয়
গেম খেলে টাকা আয় 

 

 

 

 

 

Image source: Youtube

টাকা ইনকাম করার যে সমস্ত গেম মার্কেটপ্লেসে অ্যাভেইলেবল রয়েছে সেগুলো মূলত আপনি যখন খেলবেন কিংবা কোন লেভেল কমপ্লিট করবেন তখন আপনাকে টাকা দিবে।

টাকা ইনকাম করার গেমগুলোর একটি পরিপূর্ণ লিস্ট নিচে দেয়া হল; এগুলো থেকে আপনি সত্যিই গেম খেলে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি গেম প্রেমী হন এবং যে কোনো রকমের ভিডিও গেম খেলে টাকা আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত গেম গুলো খেলে নিবেন; এবং এর পাশাপাশি টাকা আয় করবেন।

 

বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয়

 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা শুধুমাত্র এড দেখে টাকা আয় করতে চান। এই অ্যাড দেখে টাকা আয় করা খুবই সহজ একটি ব্যাপার।

বিজ্ঞাপন থেকে টাকা আয় করার কোন একটি সাইটের সাথে আপনি যখন সম্পৃক্ত হবেন; তখন ওই সাইটে আপনাকে কিছু সময়ের জন্য কয়েকটি অ্যাড দিবে। এগুলো আপনাকে দেখতে হবে।

এই অ্যাডগুলো হতে পারে ভিডিও এড কিংবা অন্য রকম কোন এড। এগুলো ডিউরেশন পাঁচ থেকে দশ সেকেন্ডের মধ্যে হয়। এবং কিছু লিমিটেশন এর মধ্যে আপনি বিজ্ঞাপনগুলো দেখতে পারেন।

বিজ্ঞাপন দেখে আপনি কিভাবে খুব সহজে আয় করতে পারেন সেই সম্পর্কে একটি আর্টিকেল এই ব্লগে পূর্বে পোস্ট করা হয়েছে; আপনি সেটি দেখে আসতে পারেন।

এড দেখে টাকা ইনকাম ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ দিয়ে |

উপরে উল্লেখিত আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনি বিজ্ঞাপন থেকে আয় করার মত যে সমস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলো লিস্ট দেখে নিতে পারবেন। যেগুলো সহজ ভাবে আপনাকে এড দেখে টাকা আয় করতে সাহায্য করবে।

এছাড়াও আরো যে সমস্ত ওয়েবসাইট থেকে আপনি কিছু সময়ের জন্য বিজ্ঞাপন থেকে আয় করতে পারবেন সেগুলো হলোঃ

অ্যাড দেখে টাকা আয় করার সাইট

আশাকরি উপরে উল্লেখিত ওয়েবসাইটগুলো সহযোগিতায় আপনি খুব সহজে বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয় করতে পারবেন এবং পেমেন্ট নিতে পারবেন।

 

অনলাইনে আয় করার পর পেমেন্ট কিভাবে নিবেন?

 

অনলাইনে আয় করা কমপ্লিট করে নিলেন; কিন্তু আপনি কাজ করার পরে যে সমস্ত পারিশ্রমিক পেলেন সেই সমস্ত পারিশ্রমিক কিভাবে আপনার পকেট অবধী নিয়ে আসবেন?

উপরে উল্লেখিত ওয়েবসাইটগুলো থেকে আপনি আয় করতে পারবেন। কিন্তু যখন আপনার আয়কৃত টাকার পরিমাণ কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন আপনি নিশ্চয়ই এখান থেকে উইথড্র করতে চাইবেন।

অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় বিদেশি যে সমস্ত ট্রাস্টেড ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো থেকে আপনি অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন; সাইটগুলোর মধ্যে থেকে ৯৯.৯৯% সাইটের পেমেন্ট মেথড হিসেবে “পেপাল” সিলেক্ট করে থাকে।

Image source: Google

কিন্তু বাংলাদেশ থেকে তো পেপাল একাউন্ট হয় না:) তার মানে কি আপনি ওই সমস্ত ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম করার পরে নিরাশ হয়ে ঘরে ফিরবেন? আমি থাকতে আপনি কেন নিরাশ হয়ে ঘরে ফিরবেন?

এক্ষেত্রে আপনাকে বাংলাদেশ থেকে সমস্ত নিয়ম উপেক্ষা করে একটি পেপাল একাউন্ট খুলতে হবে, যাতে করে আপনি ঐ সমস্ত টাকাগুলো আপনার পকেট এ ভরে নিতে পারেন।

আর কিভাবে আপনি বাংলাদেশ থেকে বসেই একটি ভেরীফাইড পেপ্যাল একাউন্ট তৈরি করবেন সেই সম্পর্কে আপনি আমার Blog site এর আরেকটি আর্টিকেল থেকে থেকে আসতে পারবেন।

Paypal একাউন্ট খোলার নিয়ম | (Updated 2020)

আর যখনই আপনি আপনার পেপাল একাউন্ট খুলে নিবেন; তখন আপনি আপনার টাকা গুলো কে ওই পেপাল একাউন্ট এর ইমেইল এড্রেস এর মাধ্যমে নিয়ে আসতে পারবেন।

ফলে যে সমস্ত ওয়েবসাইটের পেমেন্ট মেথড পেপাল করা আছে সে সমস্ত ওয়েবসাইট আপনি আর কখনো Skip করবেন না। কারণ আপনি এ সমস্ত সাইট থেকে তো টাকা নিয়ে আসতে পারবেন।

অনেক তো বিদেশি ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করা হলো এবার দেখি আমাদের বাংলাদেশের কি অবস্থা।

বাংলাদেশী ওয়েবসাইট থেকে আপনি কিভাবে আয় করবেন? অথবা এরকম কোন ওয়েবসাইট থেকে যেখান থেকে আপনি আয় করতে পারবেন।

 

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

 

বাংলাদেশ থেকে যে সমস্ত ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনি অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন; সেগুলো মূলত আপনাকে কিছু সীমিত পরিমাণে টাকা পারিশ্রমিক হিসেবে দিবে।

visaxpresbd

আপনি যদি বাংলাদেশের ওয়েবসাইট থেকে শুধুমাত্র নিউজ এবং ভিডিও দেখে আয় করতে চান; তাহলে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত ওয়েবসাইট ব্যবহার করবেন।

এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি কয়েক সেকেন্ডের মত কিছু নিউজ এবং ভিডিও দেখে আয় করতে পারবেন। এবং আপনি চাইলে এই পেমেন্ট বিকাশ রকেট ইত্যাদিতে নিতে পারবেন।

kajkey.com

আপনি যদি আপনার বিভিন্ন ক্লায়েন্টের সমস্যার সমাধান দিয়ে কিংবা বিভিন্ন কাজ করে ইন্সট্যান্টলি পেমেন্ট পেতে চান; তাহলে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত বাংলাদেশি সাইট ব্যবহার করবেন।

এই ওয়েবসাইটে আপনি যখন রেজিস্টার করে নিবেন, তখন আপনি চাইলে যেকোন রকমের সমস্যার সমাধান করতে পারেন এবং সমাধানের জন্য বেঁধে দেয়া সমপরিমাণ টাকা আপনি আয় করতে পারেন।

এটি অনেকটা ফ্রিল্যান্সার সাইটের মত। যেখানে আপনি আপনার ক্লায়েন্টের ওয়েব সম্পর্কিত কিংবা অন্যান্য যেকোন বিষয় সম্পর্কিত প্রশ্নের সঠিক সমাধান দিয়ে আয় করবেন।

ওয়েবসাইট থেকেও আপনি বিকাশ এবং রকেট পেমেন্ট নিতে পারবেন; এতে আপনার কোন ভিসা কার্ড; মাস্টার কার্ড; কিংবা অন্য যে কোনো রকম ইন্টার্নেশনাল কার্ড এর দরকার পড়বে না।

Amrtube

আপনি যদি ভিডিও থেকে, রেফার করে এবং বিভিন্ন রকমের ফেসবুক পেইজে লাইক এবং ফলো করে আয় করতে চান তাহলে উপরের ওয়েবসাইট ব্যবহার করুন।

সাইট থেকে আপনি চাইলে যেকোনো ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করার মাধ্যমে বিভিন্ন পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন; এছাড়াও ইউটিউব ভিডিওতে লাইক করার জন্য আপনি টাকা পাবেন।

আপনি এখানে যত টাকা আয় করবেন; সে সমস্ত টাকাগুলো চাইলে মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন; কিংবা আপনার বিকাশ কিংবা রকেট একাউন্টে নিয়ে নিতে পারবেন।

আর বাংলাদেশী ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করার মত যে সমস্ত বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে আমি উপরে আলোচনা করেছি।

আপনার কাছে যদি এরকম কোন সাইট থাকে তাহলে আপনি ফিল ফ্রী আমাদেরকে ইমেইল করে জানাতে পারেন। সমস্ত দিক পর্যালোচনা করে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট আমাদের আর্টিকেল এর মধ্যে লিংক করানো হবে।

আশাকরি ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করার যে সমস্ত সহজ পন্থা রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে আপনি পরিপূর্ণ ধারণা নিতে পেরেছেন।

আপনি যখন অনলাইনে আয় করে ক্রিয়েটিভ হবেন এবং আমি পরিপূর্ণ রেস্ট নিতে পারব। তাহলে আর দেরি না করে অনলাইনে আয় করার জন্য উপরে উল্লেখিত পন্থাগুলো ব্যবহার করুন।

Leave a Comment

nineteen − four =