মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা কিভাবে?মাসে 10-15 হাজার টাকা|

আমাদের মধ্যে এরকম অনেকেই আছেন যারা প্রতিনিয়ত নতুন রকমের বিজনেস আইডিয়া খুঁজে বের করেন। যাতে করে তারা খুব কম সময়ে এবং কম পরিশ্রম করার মাধ্যমে লাভবান হতে পারেন। এর মধ্যে একটি হলো মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা। 

 
আর যে সমস্ত বিজনেস আইডিয়া গুলো মাধ্যমে আপনি খুব কম সময়ে এবং স্বল্প পরিশ্রমে আয় করতে পারবেন তার মধ্যে একটি হলো মোবাইল রিচার্জ এর ব্যবসা।
 
মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব কম সময়ে এবং স্বল্প পরিশ্রমে শুধুমাত্র আপনার গ্রাহকের ফোনে রিচার্জ করার মাধ্যমে খুব ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন।
 
মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা কিভাবে করবেন এই সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য এই পোষ্টের মধ্যে আলোচনা করা হবে আশা করি শেষ পর্যন্ত দেখবেন।

মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা কিভাবে?

মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা করতে হলে আপনাকে প্রথমত রিচার্জেবল একটি সিম ক্রয় করতে হবে, যা আপনি বিভিন্ন রকমের কোম্পানি থেকে ক্রয় করতে পারবেন।
 
সিমের মূল্য খুব বেশি পড়বে না, আপনাকে মাত্র 300 টাকা দিয়ে কেনা আরো কিছু কম বেশি টাকা পরিশোধ করার মাধ্যমে সিমটিকে রিচার্জেবল সিমে পরিণত করতে হবে।
 
আর আপনি যদি মাত্র ৮০০ টাকার বিনিময়ে রিচার্জ করার ব্যবসা খুলতে চান; তাহলে আমার জানামতে একটি কোম্পানি রয়েছে আপনি চাইলে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।
 
মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা
মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা

যখনই আপনি উপরোক্ত লিংকে ক্লিক করবেন তখন আপনার সামনে নতুন একটি পেজ ওপেন হবে; যেখানে আপনি আপনার ইনফর্মেশন গুলো দিয়ে তাদের কাছে রিকোয়েস্ট পাঠাতে হবে।

আপনি যদি তাদের সাথে মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা এর কাজ পরিচালনা করেন। তাহলে এখান থেকে যে সমস্ত শুফল উপভোগ করতে পারবেন সেগুলো হলোঃ

  • আপনি যখনই কারো নাম্বারে 1000 টাকা রিচার্জ করবেন তখন আপনি এখান থেকে কমিশন 30 টাকা পাবেন।
  • এছাড়াও প্রায় সময় এর রদবদল হতে পারে।
  • এই রিচার্জ ব্যবসার মধ্যে কোন লিড না থাকার কারণে আপনি ইচ্ছা স্বাধীন ব্যবহার করতে পারবেন।
  • Banglalink, Grameenphone, Airtel, Robi,Telitalk মোট ৫টি সিমে লোড করা যায়। এছাড়াও skitto রিচার্জ করা যাবে।
  • মিনিট, এমবি সহ সকল প্যাক রির্চাজ দেওয়া যাবে। আমাদের দেওয়া নির্দিষ্ট বিভিন্ন ড্রাইভ প্যাক রিচার্জ করিয়ে দিলে কমিশন পাবেন।
  • রিচার্জের হিস্টরি দেখার সুযোগ। সাথে Transaction ID সহ দেখতে পারবেন।
  • ২ বার করে নাম্বার, ২ বার করে পিন কোড বসানোর ঝামেলা নেই।
  • 12 ঘন্টা কাস্টমার কেয়ারের সুবিধা (9:00 AM – 9:00 PM) আমাদের রিচার্জ সার্ভিস 24 ঘন্টা চালু থাকে ইত্যাদি।
 
ক্ষেত্রে আপনি যদি প্রতিদিন পাঁচ হাজার টাকা ফ্লেক্সিলোড নিতে পারেন তাহলে আপনি প্রায় দেড়শ টাকার মতো আয় করতে পারবেন।
 
তবে একটি বিষয় এখানে প্রকাশ করার মতো আর সেটা হলো আপনি যদি ওই কোম্পানির সাথে নিজেকে জড়িয়ে নিয়ে রিচার্জ ব্যবসার মধ্যে পদার্পণ করতে চান তাহলে আপনাকে সমস্ত রিচার্জ তাদের কাছ থেকে ক্রয় করতে হবে।

2 thoughts on “মোবাইল রিচার্জ ব্যবসা কিভাবে?মাসে 10-15 হাজার টাকা|”

  1. ৫৯৮ টাকার অফার তারা ৫০০ টাকায় কিভাবে দেয়?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

Scroll to Top
Share via
Copy link
Powered by Social Snap