ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম জেনে নিন

একটিমাত্র ভিসা কার্ডের দ্বারা আপনি চাইলে অনলাইনে কেনাকাটা রিলেটেড নানা ধরনের কার্যাদি সম্পাদন করতে পারেন। একটি ফ্রি ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম কি?  সেটা নিয়ে আমাদের দ্বিধাদ্বন্দ্বের শেষ থাকে না।

আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে খুব সহজেই জেনে নিতে পারবেন, একটি ফ্রী Visa card আপনি কিভাবে পাবেন? যার মাধ্যমে অনলাইনে যেকোন লেনদেনের কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

ভিসা কার্ড আসলে কি?

ভিসা কার্ড হলো এমন একটি বহুবিধ সুবিধা সম্পন্ন কার্ড যে কার্ডের মাধ্যমে আপনি চাইলে অনলাইনে কেনাকাটা, যেকোন রকমের বিল পরিশোধ করার কাজ সম্পাদন করতে পারেন।

শুধু তা নয়, আপনি চাইলেই ভিসা কার্ডের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের অনলাইন কেনাকাটার ওয়েবসাইট থেকে কেনাকাটা করতে পারবেন এবং পেমেন্ট করার সময় ভিসা কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি চাইলে দেশ বিদেশের যেকোনো ধরনের অনলাইন শপিং মল থেকে ভিসা কার্ডের মাধ্যমে কেনাকাটা এর কাজ সম্পাদন করতে পারবেন।

ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম

এবার মূল প্রশ্নে চলে আসা যাক, আপনি আসলেই ভিসা কার্ড কিভাবে করবেন এবং কোথায় পাবেন এই ভিসা কার্ড?  এই প্রশ্নের উত্তরে।

এজন্য প্রথমেই বলে রাখা যাক আপনি চাইলে ভিন্ন দুটি উপায়ে ভিসা কার্ড পেতে পারেন।

প্রথম উপায় হল ভার্চুয়াল ভিসা কার্ড যা, ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা যাবে এবং দ্বিতীয়টি হলো ব্যাংক থেকে ভিসা কার্ড সংগ্রহ করা।

ভার্চুয়াল ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম

আপনি যদি শুধুমাত্র ইন্টারনেটে পেমেন্ট করার জন্য একটি ভার্চুয়াল ভিসা কার্ড পেতে চান, তাহলে প্রথমত নিম্নলিখিত লিংকে ভিজিট করুন।

Register now

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরে আপনাকে প্রথমে এখানে একটি নতুন অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনাকে Create Your account এই অপশনটির উপর ক্লিক করলে নিচের মত একটি পেজ পেয়ে যাবেন।

এখানে যে সমস্ত বিষয় গুলো আপনার কাছ থেকে তারা চাচ্ছে সে সমস্ত বিষয় গুলো যথাযথ এবং সঠিক তথ্য সহকারে দিয়ে দিন।

Full name: এখানে আপনার  যে পুরো নামটি রয়েছে, সেই পুরো নাম কি দিয়ে দিন।

Email Address: আপনি যে ইমেইলটি সর্বাধিক ব্যবহার করেন এবং জিমেইল সবচেয়ে বেশি একটিভ সেই মেইলটি এখানে দিয়ে দিন।

Phone : এখানে অবশ্যই আপনার ফোন নাম্বার দিতে হবে এবং ফোন নাম্বার দেয়ার সময় আপনার কান্ট্রি কোড +880 এটি সহকারে দিতে হবে।

Select Country: এখানে আপনি যে দেশের বাসিন্দা সেই  দেশটি সিলেক্ট করে নিতে হবে। আপনি যদি বাংলাদেশের বাসিন্দা হন, তাহলে বাংলাদেশ সিলেক্ট করে নিন।

Address: এখানে আপনার সমস্ত এড্রেসের কথা বললে করতে হবে অর্থাৎ আপনি গ্রাম, উপজেলা, জেলা সম্পর্কে একটি সঠিক তথ্য দিয়ে দিতে হবে।

Password &Confirm password: এই দুইটি অপশনে আপনাকে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড নির্বাচন করতে হবে।

উপরে উল্লেখিত ডকুমেন্টগুলো যথাযথভাবে দেয়ার পরে আপনাকে Register অপশনটিতে ক্লিক করার মাধ্যমে রেজিস্টার সম্পন্ন করতে হবে।

ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম জেনে নিন

রেজিস্টার করার জন্য আপনার যে জিমেইল এড্রেস আপনি এখানে দিয়েছিলেন, সেই মেইল এড্রেস একটি কনফার্মেশন লিঙ্ক যাবে। সেই লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার একাউন্ট ভেরিফাই করে নিতে হবে।

আপনি যখনই আপনার একাউন্ট ভেরিফাই করে নিবেন, তখন আপনি এই ওয়েবসাইটের এক্সেস নিতে পারবেন, এবং এর হোম পেইজে আপনি বামপাশের আইকন গুলোতে যখন ক্লিক করবেন, তখন একটি অপশন দেখতে পারবেন সেটি হল Buy card.

আপনি যখনই এতে ক্লিক করবেন তখন এখান থেকে কিছু ডলার খরচ করার মাধ্যমে একটি ভিসা কার্ড ক্রয় করে নিতে পারবেন।

 

ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম জেনে নিন

মূলত আপনি এখান থেকে যে ভিসা কার্ড পাবেন সেটি আপনার হাত অবধি নিয়ে আসতে পারবেন না।

অর্থাৎ এক্ষেত্রে আপনাকে ওই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এ ভিসা কার্ড ব্যবহার করতে হবে।

বিষয়টা এরকম যে, আপনি এই ভিসা কার্ডের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের কাজ সম্পাদন করতে পারবেন। যেমন- অনলাইনে কেনাকাটা, ফেসবুক পেজ বুস্ট কিংবা কেনাকাটা সহ কোনো কিছু।

কিভাবে টাকা যুক্ত করবেন?

আপনি যদি আপনার ভিসা কার্ডের টাকা যুক্ত করতে চান, তাহলে এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে খুব সহজেই করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে ওই ওয়েবসাইটে চলে যেতে হবে, এবং তারপরে বামপাশের আইকনগুলো থেকে Deposite অপশনে ক্লিক করার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের মেথড সহকারে আপনার ভার্চুয়াল কার্ডে টাকা যুক্ত করতে পারবেন।

ভিসা কার্ড পাওয়ার নিয়ম জেনে নিন

এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য হলো বিটকয়েন, স্ক্রিল কিংবা ব্যাংক একাউন্ট।

আপনি চাইলে এই সমস্ত পেমেন্ট মেথড গুলোর সহযোগিতা খুব সহজেই আপনার ভিসা কার্ডে টাকা যুক্ত করে নিতে পারবেন।

ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে ভিসা কার্ড

এছাড়াও আপনি যদি সরজমিনে একটি ভিসা কার্ড পেতে চান তাহলে এজন্য আপনাকে যেকোন ব্যাংকে একটি একাউন্ট তৈরী করে নিতে হবে।

আপনি যখনই যে কোন ব্যাংকে  অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন তখন আপনি তাদের কাছ থেকে একটি ভিসা কার্ড পাবেন।

আর এই ভিসা কার্ডের কিছু চার্জ রয়েছে। যেগুলো আপনাকে প্রতিবছরে বছরে পরিশোধ করে নিতে হবে, আর এই পরিশোধের পরিমাণ সাধারণত আপনার একাউন্ট থেকে কেটে নেয়া হবে।

অর্থাৎ এখানে কথাটি স্পষ্ট যে আপনি যদি ভিসা কার্ড পেতে চান তাহলে আপনাকে সবচেয়ে সহজ যে পদ্ধতি রয়েছে, তা হলো একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা এবং তারপরে ভিসা কার্ডের জন্য আবেদন করা।

তবে আপনি যদি ব্যাংক থেকে কোনো একটি ভিসা কার্ড নিতে চান, তাহলে আপনাকে আপনার পাসপোর্ট এবং তারপরে আপনার আর্নিং সোর্স দেখিয়ে তারপরে ভিসা কার্ড নিতে হবে।

ব্যাংক থেকে ভিসা কার্ড নেয়ার পূর্বে অবশ্যই আপনার ব্যবহৃত ভিসা কার্ডের যে চার্জ রয়েছে, সেই সম্পর্কে অবগত হয়ে যান৷

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Share via
Copy link