গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

গর্ভাবস্থায় আপনি যদি সঠিক ডায়েট ফলো করতে পারেন কিংবা সঠিক নিয়মে খাদ্যবস্তু গ্রহণ করতে পারেন, তাহলে মা এবং সন্তান সুস্থ থাকে। আর সে জন্য প্রয়োজন হয় গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা সম্পর্কে জেনে নেয়া।

আপনি যদি গর্ভাবস্থায় প্রথম ৩ মাসের সঠিক খাদ্য তালিকা সম্পর্কে জেনে নিতে চান, তাহলে এই আর্টিকেল থেকে সেই রিলেটেড তথ্য সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

গর্ভবতী মায়ের সঠিক খাবারের গুরুত্ব কেমন?

গর্ভাবস্থায় কোন মা যদি সঠিকভাবে খাদ্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেন, তাহলে নিঃসন্দেহে তার গর্ভে থাকা সন্তান সুস্থ এবং সাবলীল ভাবে গড়ে উঠবে।

এক্ষেত্রে গর্ভে থাকা সন্তানের ব্রেনের আই কিউ বৃদ্ধি পাবে, এছাড়াও সন্তান সুস্থ ভাবে ভূমিষ্ঠ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি বেড়ে যাবে।

সেজন্য আপনাকে অবশ্যই একজন ভালো ডাক্তারের সহযোগিতায় একটি ভালো খাদ্য তালিকা তৈরী করে নিতে হবে। যে খাদ্য তালিকা মাধ্যমে আপনি নিজের এবং সন্তানের সঠিক যত্ন নিতে সক্ষম হবেন।

তাহলে আর দেরি না করে এখনি জেনে নেয়া যাক গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা বা গর্ভাবস্থায় একজন গর্ভবতী মায়ের খাদ্য তালিকা সম্পর্কে।

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা যে সমস্ত খাবার আপনি রাখতে পারেন, সেগুলো সম্পর্কে ধাপে ধাপে নিচে আলোচনা করা হলো।

দুধ কিংবা দুগ্ধজাত জাতীয় খাবার

একজন মায়ের এবং তার সদ্য ভূমিষ্ঠ হবে এরকম শিশুর স্বাস্থ্যের সঠিক সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য, দুধ কিংবা দুগ্ধজাত জাতীয় খাবার খুবই প্রয়োজনীয়।

এক্ষেত্রে খাবারের নিত্যদিনের তালিকা আপনি চাইলে দুধ কিংবা এই রিলেটেড যে সমস্ত দুগ্ধজাতীয় খাবার প্রয়োজন সেগুলো রাখতে পারেন।

সবুজ শাকসবজি

যেকোনো সময় শরীরকে সঠিক অবস্থায় রাখতে সবুজ শাকসবজি এর কোনো বিকল্প নেই। আপনি যদি সবুজ শাকসবজি খেতে পারেন, তাহলে আপনার শরীর সুস্থ থাকবে।

তবে গভাবস্থায় সবুজ শাকসবজি প্রয়োজনীয়তা অধিক হারে বৃদ্ধি পায়। এক্ষেত্রে আপনার শরীর এবং বাচ্চার শরীর সুস্থ রাখার জন্য নিয়মিত সবুজ শাকসবজি খেতে করতে পারেন।

গর্ভাবস্থায় খাবারের যে তালিকা রয়েছে সেই খাবারের তালিকায় আপনি যদি অন্য যেকোন রকমের খাবার যুক্ত করতে হিমশিম খেয়ে যান, তাহলে অন্য খাবারের চেয়ে অনেকটা সস্তা মূল্যে সবুজ শাক-সবজি যুক্ত করে নিতে পারেন।

কারণ, সবুজ শাকসবজি থেকে আপনি যে সমস্ত ভিটামিন পাবেন, সেটি আপনার শরীরকে সুস্থ এবং সতেজ রাখতে সহায়তা করবে।

ডিম ও হাঁস মুরগির মাংস

ডিম ও হাঁস মুরগির মাংস নিঃসন্দেহে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বহন করে থাকে। সেজন্য আপনি যদি আপনার শরীরের অবস্থা বজায় রাখতে চান, তাহলে ডিম এবং হাঁস মুরগির মাংস খেতে পারেন।

আপনি যদি প্রতিদিনের জন্য ডিম বা হাস-মুরগীর মাংস খেতে সমর্থ্য না হন, তাহলে সপ্তাহে কমপক্ষে ২/৩ দিন এটি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন।

এতে আপনার শরীরের ক্ষয় পূরণ হবে এবং নিজেকে সুস্থ রাখতে এই সমস্ত খাবার খুবই উপকারে আসবে।

ফোলেট খাবার

এখানে ফলেট জাতীয় খাবার বলতে বোঝানো হয়েছে যেমন- পালং শাক, বাঁধাকপি, মটরশুটি, মুসুর ডাল, শতমূলী, বীনস, লেবুবর্গীয় ফল, আভোকাডো, ভেন্ডি বা ঢ্যাঁড়শ এবং ছোঁট বাধাকপি ইত্যাদি।

আপনি চাইলে নিত্যদিনের খাদ্যতালিকায় এই সমস্ত খাবার রাখতে পারেন। যাতে করে আপনার শরীরের সঠিক ক্ষয় পূরণ হয়।

মোট কথা হল, শাকসবজি রিলেটেড যে সমস্ত খাদ্যবস্তু রয়েছে, সে সমস্ত খাদ্যবস্তু এসমস্ত আইটেমের মধ্যে পড়বে।

ফলমূল

এছাড়াও গর্ভাবস্থায় প্রথম তিন মাসে কিংবা এই অবস্থায় যেকোনো সময় ফলমূল প্রচুর পরিমাণে খেতে পারেন।

ফলমূল খেতে করলে আপনি অন্যরকম স্বাস্থ্য পাবেন এবং এতে করে আপনার শরীর স্বাস্থ্য ঠিক থাকবে যা গর্ভাবস্থায় খুবই প্রয়োজনীয় একটি বিষয়।

এজন্য প্রতিদিন কম করে হলেও ২-৩ টা ফলমূল খাওয়ার চেষ্টা করবেন। যাতে করে আপনি শারীরিকভাবে ফিট থাকতে পারেন এবং আপনার বাচ্চা সুস্থ থাকে।

গর্ভাবস্থায় আর কি কি খাদ্য খাওয়া যায়?

এভাবে বর্ণনা না দিয়ে যদি এক কথায় বলা যায় তাহলে যে সমস্ত খাদ্যবস্তু আপনার তালিকায় রাখতে পারবেন, সেগুলোর মধ্য থেকে কিছু খাদ্য তালিকা নিচে তুলে ধরা হলো।

গাজর, মিষ্টি আলু, মিষ্টি কুমড়া, পালং শাক, টমেটো, মটরশুঁটি, ক্যাপসিকাম।

এসমস্ত খাদ্যবস্তু ছাড়াও আরো যে সমস্ত খাবার আপনি চাইলে যেতে পারেন, সেগুলো হলঃ আম, কলা, কমলা, মাল্টা, জাম্বুরা, বাঙ্গি, বাদাম।

উপরে উল্লেখিত খাবার খেলে আপনার শরীর সুস্থ থাকবে এবং আপনি সুস্থ থাকলে আপনার বাচ্চাও সুস্থ থাকবে।

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার পরিহার কৃত খাদ্য

এছাড়াও আপনি যদি গর্ভবতী হয়ে থাকেন, তাহলে যে সমস্ত খাবার আপনার খাওয়া উচিত হবে না সে সমস্ত খাবার সম্পর্কে জেনে নেয়ার প্রয়োজন আছে।

একজন গর্ভবতী মা হিসেবে আপনি যে সমস্ত খাবার অবশ্যই এড়িয়ে চলবেন, সে সমস্ত খাবার গুলোর মধ্যে থেকে কিছু খাবারের লিস্ট নিচে তুলে ধরা হলো।

  • গরু, ছাগল কিংবা ভেড়ার অপাস্তুরিত দুধ।
  • অপাস্তুরিত দুধ দিয়ে তৈরি বিভিন্ন খাবার।
  • কাঁচা বা পর্যাপ্ত রান্না হয়নি এমন মাংস।
  • কলিজা ও কলিজা দিয়ে তৈরি খাবার।
  • কাঁচা বা আধসিদ্ধ সামুদ্রিক মাছ বা তা দিয়ে তৈরি খাবার (যেমন, সুশি)
  • অতিরিক্ত লবণ।
  • মাদক।
  • ক্যাফিন।
  • কাঁচা বা আধা সিদ্ধ গোস্ত।
  • নরম চীজ বা পনির ইত্যাদি।

এই সমস্ত খাবার যতটা পারেন এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন। কারণ এই সমস্যা খাবার আপনার ক্ষতি সাধন করবে।

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা সম্পর্কে উপরে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো।

এছাড়াও আলোচনা করা হয়েছে, গর্ভাবস্থায় যে সমস্ত খাবার গুলো এড়িয়ে চলা দরকার সেগুলো সম্পর্কে।

এ সমস্ত নিয়মকানুন মেনে চলা ছাড়াও আপনি চাইলে একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। যে ডাক্তারের সহায়তায় আপনি আরও সঠিক ডায়েট অনুসরণ করতে পারবেন।

আশাকরি, গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা সম্পর্কে উপরে থেকে জেনে নিতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Share via
Copy link