অ্যামাজন শপিং | বাংলাদেশে অ্যামাজন শপিং করুন

অনলাইনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ রয়েছে এবং প্রায়শই অনলাইনের মাধ্যমে কেনাকাটা সম্পাদন করে এরকম লোকদের মধ্যে আপনি একজন খুঁজে পাবেন না, যে লোকটি আসলে অ্যামাজনের নাম শুনেনি।অ্যামাজন শপিং কিভাবে করব?

অনলাইনের মাধ্যমে কেনাকাটা কিংবা যেকোন ধরনের পছন্দের দ্রব্যাদি কিনার জন্য যে সমস্ত মার্কেটপ্লেস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, এগুলোর মধ্যে প্রথম স্থানে, অ্যামাজন শপিং অবশ্যই টেনে আনতে হবে।

অ্যামাজন মূলত হলো একটি ইন্টারনেট জায়ান্ট।  যেখান থেকে আপনি যেকোনো ধরনের পন্য ক্রয় করতে পারবেন নির্দ্বিধায়, কোন রকমের ধোকার শিকার এখানে কখনোই হবে না।

অ্যামাজন আসলে কি?

অ্যামাজন হলো এমন একটি ইন্টারনেট জায়ান্ট এবং অনলাইনে কেনাকাটার জন্য বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা এমন একটি প্রতিষ্ঠান, যেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দের যে কোন পণ্য ক্রয় করতে পারেন।

আপনি যদি ইউরোপ অথবা মিডিলিস্ট অথবা আমেরিকা এর যে কোন দেশের দিকে লক্ষ রাখেন, তাহলে দেখতে পারবেন, তারা মূলত তাদের প্রয়োজনীয় পণ্যের বেশকিছু শতাংশ অ্যামাজন এর মাধ্যমে ক্রয় করে থাকে।

অ্যামাজন হলো, এমন একটি ই-কমার্স প্লার্টফর্ম। যেখানে আপনি কোন একটি প্রোডাক্ট অর্ডার করার কিছু সময়ের মধ্যেই ,তারা আপনার দরজার সামনে ওই পণ্যটি নিয়ে উপস্থিত হবে।

অ্যামাজন শপিং কি?

আপনি যদি ঘরে বসে স্বল্প খরচের মধ্যে আপনার প্রোডাক্ট ক্রয় করে আপনার ঘর অব্দি নিয়ে আসতে চান, তাহলে আপনি অ্যামাজন ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার শপিং যদি সম্পন্ন করেন, তাহলে এটিকে আমাজন শপিং বলতে।

অ্যামাজন শপিং মূলত অ্যামাজন এর মাধ্যমে আপনার কেনাকাটা করা উল্লেখ করে, যা নিঃসন্দেহে ভালো একটি ব্যাপার বা উদ্যোগ।

অ্যামাজন শপিং কিভাবে করবেন?

আপনি যদি আমাজন এর মাধ্যমে শপিং করতে চান, তাহলে আপনি চাইলে ডাইরেক্ট অ্যামাজনের ওয়েবসাইট থেকে শপিং না করে বিশ্বব্যাপী তাদের যে অফিস গুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, সেই সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে শপিং করতে পারেন।

অর্থাৎ আপনি যদি বাংলাদেশের বাসিন্দা হন, তাহলে বাংলাদেশে অ্যামাজনের যে সেক্টর রয়েছে, সেই সেক্টর কে কাজে লাগিয়ে আপনি ঘরে বসে শপিং করে নিতে পারেন।

আপনি যদি চান অ্যামাজন থেকে শপিং করার মাধ্যমে যে কোন একটি প্রোডাক্ট বাংলাদেশ নিয়ে আসতে, তাহলে আপনাকে প্রথমে নিচের দেওয়া লিংকে ভিজিট করতে হবে।

Amazon Shopping

যখনই আপনি উপরুক্ত লিংকে ভিজিট করবেন, তখন আপনাকে অবশ্যই অ্যামাজন এর অধীনে একটি নতুন অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে। মনে রাখবেন, অ্যাকাউন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই আপনার সঠিক ডকুমেন্টস দিতে হবে।

অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য এই ওয়েব পেইজের একেবারে উপরের দিকে Sing in নামের যে অপশন রয়েছে এতে ক্লিক করুন।তারপর Create new account.


অ্যামাজন শপিং মোবাইল | বাংলাদেশে অ্যামাজন শপিং করুন |


অ্যাকাউন্ট তৈরি করা সম্পন্ন হলে আপনি আবার ওই পূর্বের লিংকে ভিজিট করুন এবং তারপরে আপনার পছন্দের পণ্যটি উপরের সার্চ বারে সার্চ করে নিন।

সার্চ করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই আপনার পছন্দের পণ্যটি কে ইংরেজিতে লিখতে হবে, এবং তারপর এটি কোন দেশে আপনি ডেলিভারি করাতে চান, সেই দেশটি সিলেক্ট করে নিতে হবে।

 

অ্যামাজন শপিং মোবাইল | বাংলাদেশে অ্যামাজন শপিং করুন |

 

যখনই আপনি চেক আউট করে নিবেন তখন আপনি দেখতে পারবেন, এই পণ্যটি ক্রয় করতে হলে আপনার কত ডলার খরচ যাবে এবং এটি কত দিনের মধ্যে আপনার লোকেশনে শিফট হবে।

অ্যামাজন শপিং মোবাইল | বাংলাদেশে অ্যামাজন শপিং করুন |

আপনি চাইলে বিভিন্ন পেমেন্ট মেথড এর সাথে আপনার পণ্যটি ক্রয় করতে পারবেন এবং তাদের দেয়া দাম পরিশোধ করতে পারবেন।

যে সমস্ত পেমেন্ট মেথড এর সহযোগিতায় আপনি কি অ্যামাজন শপিং করতে পারবেন, সেগুলো হলো: ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ড, ব্যাংক ট্রান্সফার, আমাজন গিফট কার্ড, Amazon Pay · Amazon PayCode  ইত্যাদি।

এভাবেই, আপনি খুব সহজেই অ্যামাজন থেকে শপিং করতে পারবেন

আশাকরি আমাজন শপিং সম্পর্কে আপনি পুরোপুরি জেনে নিতে পেরেছেন।

1 thought on “অ্যামাজন শপিং | বাংলাদেশে অ্যামাজন শপিং করুন”

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Share via
Copy link