সিপিএ মার্কেটিং কি? CPA মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন? (Step by Step)

সিপিএ মার্কেটিং এর নাম কখনো শুনেছেন? সিপিএ মার্কেটিং কি? কীভাবেই বা CPA মার্কেটিং শুরু করবেন?

আপনি যদি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর নাম শুনে থাকেন, তাহলে সিপিএ মার্কেটিং এর নাম শুনে থাকবেন। কারণ এফিলেয়েট এবং CPA মার্কেটিং এর মধ্যে অনেক মিল রয়েছে।

তবে CPA মার্কেটিং আর এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মধ্যে আকাশ-পাতাল ডিফারেন্ট। যদিও দুটি বিষয় একই কাজকে বহন করে, তবুও সিপিএ মার্কেটিং এফিলিয়েট মার্কেটিং এর চেয়ে সহজ।

এই পোস্টটিতে মূলত আপনি CPA মার্কেটিং নিয়ে সমস্ত বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পারবেন; যাতে করে আপনার এই সম্পর্কে আর কোন প্রশ্ন থাকবে না।

সিপিএ মার্কেটিং কি?

উদাহরণস্বরূপ; যেকোনো একটি কোম্পানি থেকে একটি অফার আসলো যে আপনি যদি ওই কোম্পানিতে কাস্টমার রেজিস্ট্রেশন করাতে পারেন তাহলে আপনাকে কিছু টাকা দেয়া হবে।

ব্যাপারটা আরেকটু স্পষ্ট করে বলা যাক; ধরুন; কোন কোম্পানি বলল আপনি তাদেরকে 50 জন কাস্টমার রেজিস্ট্রেশন করিয়ে দিতে, এতে করে আপনাকে 500 টাকা দিবে।

রেজিস্ট্রেশন করানো মানে এটা নয় যে আপনি তাদেরকে রেজিস্টার করিয়েছেন এবং তারা এখান থেকে কোন প্রোডাক্ট নেয়ার পরে আপনাকে টাকা পাইয়ে দেবে। এটা মূলত এফিলিয়েট মার্কেটিং হয়ে থাকে।

তবে CPA মার্কেটিং এই সমস্ত কোন ঝামেলা নেই। এখানে আপনি প্রত্যেকটি লিড কমপ্লিট করার মাধ্যমে কিছু ডলার আয় করে নিতে পারবেন। আপনাকে কোন কিছু বিক্রি করতে হয় না।

CPA Marketing এর পূর্ণরূপ হলঃ “Cost Per action”। অর্থাৎ এখানে আপনি আপনার প্রত্যেকটি একশন কমপ্লিট করার মাধ্যমে টাকা আয় করবেন।

উপরে উল্লেখিত বর্ণনামতে আপনি যদি ওই কোম্পানিতে 50 জন কাস্টমার শুধুমাত্র রেজিস্ট্রেশন করে দেন তাহলে আপনার একটা লিড কমপ্লিট হয়ে যাবে।আর এই লিড কমপ্লিট এজন্য আপনি পুর্বে থেকে নির্ধানিত কিছু টাকা পাবেন।

CPA Marketing কি এই সম্পর্কে আশাকরি আপনার ধারণা এবার পুরোপুরি স্পষ্ট। এবং আপনি জেনে নিতে করেছেন এটি আসলে কি অর্থ বোঝায়।

সিপিএ মার্কেটিং করতে কি কি লাগে?

সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য আপনার একেবারে শূন্য নলেজ হলেও কোন সমস্যা নেই। কারণ CPA মার্কেটিং অনেক কাজ বিদ্যমান রয়েছে সেগুলো যে কেউ করতে পারে।

তবে আপনি যদি একেবারে ইন্টারনেট সম্পর্কে কম দক্ষতা নিয়ে সিপিএ মার্কেটিং প্লেসমেন্টে পদার্পণ করেন তাহলে সফলতা পেতে অনেক সময় লাগবে।

এক্ষেত্রে আপনাকে ন্যূনতম ব্রাউজারে কোন কিছু সার্চ করে জানা শিখতে হবে

সিপিএ মার্কেটিং করতে গেলে সবচেয়ে বেশি লাভজনক এবং সুবিধা পাওয়ার জন্য আপনার কাছে যে জিনিসটি থাকা খুবই প্রয়োজনীয় সেগুলো হলোঃ

  • একটি ল্যাপটপ/ না থাকলে স্মার্টফোনে যথেষ্ট।
  • ভালো ব্রডব্যান্ড কিংবা ইন্টারনেট কানেকশন।
  • একটি ওয়েবসাইট হলে সবচেয়ে ভালো হয় (Optional)।
  • সাইটের ট্রাফিক হাই লেভেল (Optional)।
  • ইংরেজি সম্পর্কে ধারণা।
  • ব্রাউজিং করার ন্যূনতম দক্ষতা ইত্যাদি।

মূলত উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো আপনার কাছে থাকা অত্যাবশ্যকীয় জরুরি। তবে যে পয়েন্টগুলোর পাশে Optional লেখা রয়েছে সেগুলো বাধ্যতামূলক নয়।

Otional এ উল্লেখ্য পয়েন্টগুলো যদি আপনার কাছে থাকে তাহলে কাজটি আরও বেশি সহজতর হয় না, থাকলে কোন সমস্যা নেই।

আপনি যদি CPA মার্কেটিং করতে চান, তাহলে আপনাকে মূলত উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলোর প্রতি সবচেয়ে বেশি নজর দিতে হয় এবং এগুলো কম করে হলেও কিছুটা জেনে রাখা ভালো।

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শিখবেন?

আপনি যদি উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো সাথে নিজেকে মানিয়ে নিন এবং এটা মনে করেন যে আপনি আসলে সিপিএ মার্কেটিং শেখার মত উপযোগী তাহলে প্রশ্ন হল কীভাবে এটি শিখবেন?

আপনি যখনই CPA মার্কেটিং শিখতে যাবে তখন আপনার সামনে যে সমস্ত বিষয়গুলো সবচেয়ে বেশি আসবে সেগুলো হলোঃ

  • Advertiser.
  • Publisher.
  • PPL.
  • PPC.
  • Affiliate Manager.
  • Category.
  • Offer page.

মূলত CPA মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে পরিচিত শব্দ গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলোর মানে আসলে কি? জেনে নিন নিম্নরূপে।

Advertiser : সিপিএ মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে যারা মূলত আপনাকে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দিবে কিংবা যারা উদ্যোক্তা তারাই মূলত অ্যাডভারটাইজার।

Publisher : পাবলিশার মূলত আপনার আমার মত তারাই যারা এই সমস্ত অ্যাডভারটাইজার কর্তৃক দেয়া অ্যাডভার্টাইজমেন্ট যেকোন উপায়ে প্রমোট করবে; এবং কমিশন আদায় করবে।

PPL: PPL শব্দটির পূর্ণরূপ হলঃ “Pay Per lead”. এখানে আপনার প্রত্যেকটি কাজ সম্পাদনের জন্য একেকটি লিড পরিপূর্ণ হয়। যার জন্য তারা আপনাকে কমিশন দেবে।

এর সহজ মানে হল আপনি যদি আপনার advertiser’s এর কাছ থেকে নিয়ে দশজনকে প্রচার করার পরে; এখান থেকে একজন যখন রেজিস্ট্রেশন কিংবা টাস্ক কমপ্লিট করে নিবে, তখন আপনি পেমেন্ট পাবেন।

PPC: PPC এর পূর্ণরূপ হলঃ “Pay per Click”. অর্থাৎ আপনি CPA মার্কেটিং যখন করবেন, তখন এরকম অনেক ইন্ডাস্ট্রিজ পাবেন যারা আপনার পাবলিশ করা এড এ ক্লিক করার মাধ্যমে টাকা দেবে।

অর্থাৎ আপনি যদি যেকোন উপায়ে তাদের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্রমোট করেন এবং এখানে যে কেউ যখন ক্লিক করবে তখন আপনাকে কিছু অ্যামাউন্ট দিবে। এটাই মূলত PPC।

Affiliate Manager: এফিলিয়েট ম্যানেজার হল ঐ ব্যক্তি যে ব্যক্তি মূলত আপনার যেকোন লিডগুলো কে মার্চেন্ট হিসেবে কমপ্লিট করতে সহায়তা করবে।

এফিলিয়েট ম্যানেজার মূলত লিড কমপ্লিট করতে সহায়তা করে এবং মার্চেন্টের হয়ে কাজ করে; এবং তাদেরকে কমিশন পাইয়ে দেয়।

Category: আপনি যখনই সিপিএ মার্কেটিং করতে যাবেন তখন আপনার ক্ষেত্রে অনেকগুলো ক্যাটাগরি প্রযোজ্য হতে পারে অর্থাৎ যেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দের ক্যাটাগরির বেছে নিয়ে কাজ করতে পারেন।

CPA মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে অনেকগুলো ক্যাটাগরি বিদ্যমান রয়েছে সেগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলোঃ “Apps, Website, Products, Beauty, Fashion, Health” ইত্যাদি।

Offer Page: অর্থাৎ আপনি যখনই CPA মার্কেটিং করবেন তখন আপনার কাস্টমারের জন্য যে পেইজ তৈরি করবেন যেখানে তাকে আপনার Lead কমপ্লিট করার জন্য আকর্ষণ করবেন; সেটি হবে Offer Page.

উপরে উল্লেখিত তথ্যটি আপনি যদি অলরেডি পড়ে নেন; তাহলে আপনি নিশ্চয়ই CPA মার্কেটিং এর যে টার্মিনাল রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিতে পেরেছেন।

এবার আপনি যদি CPA মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে বিভিন্ন উপায়ে সিপিএ মার্কেটিং শিখতে পারেন; যেমন পেইড কিংবা ফ্রি কোর্স।

সিপিএ মার্কেটিং ফ্রী কোর্স

আপনি যদি একদম বিনামূল্যে একদম শুরু থেকে শেষ অব্দি সিপিএ মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে আপনাকে ফ্রি কোর্স এড়িয়ে চললে হবে না।

মূলত ওয়েব সাইট গুলোর মধ্যে থেকে কোথাও আপনি এরকম কোন পেজ পাবেন না; যেখানে আপনি CPA মার্কেটিং ফ্রিতে শিখতে পারবেন।

তাহলে আপনি কোথায় সিপিএ মার্কেটিং একদম বিনামূল্যে শিখতে পারবেন? সিপিএ মার্কেটিং বিনামূল্যে বিস্তারিত শিক্ষার জন্য দুইটি উপায়ে আপনার সামনে প্রতীয়মান।

  • Video Lecture
  • Pdf

Video Lecture: আপনি মূলত বিভিন্ন ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্মের সহায়তা নেয়ার মাধ্যমে সিপিএ মার্কেটিং একদম ফ্রিতে শিখতে পারেন।

তবে ভিডিও লেকচার দেখার জন্য আপনাকে মূলত বহুদুর যেতে হয় না। এই সমস্ত কাজ গুলো পুরোপুরি সম্পাদনের জন্য ইউটিউব যথেষ্ট; আমি নিচে কিছু কোর্সের লিংক দিয়ে দিচ্ছি।

আপনি যদি এই লিঙ্কে প্রবেশ করার পরে পুরো প্লেলিস্ট দেখে নেন তাহলে আপনি সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে সবচেয়ে বেশি ধারণা অর্জন করতে পারবেন তাও একদম বিনামূল্যে।

 

ভিডিও দেখার মাধ্যমে ক্রমে ক্রমে সিপিএ মার্কেটিং শেখার জন্য আপনাকে মূলত আর কোথাও পদার্পণ করতে হবে না; উপরের দুইটি প্লেলিস্ট যথেষ্ট।

Pdf: আপনি যদি খুব বেশিক্ষণ ধরে বই পড়তে পছন্দ করেন; তাহলে চাইলেই সিপিএ মার্কেটিং রিলেটেড যে পিডিএফ বই রয়েছে সেগুলো কালেক্ট করে নিতে পারেন।

আপনি মূলত এ পিডিএফ ফাইল গুলো একদম বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবেন এবং এখানে step-by-step CPA মার্কেটিং টিউটোরিয়াল বর্ণনা করা হয়েছে।

তাহলে আর দেরি না করে এখনি নিচের দেয়া লিঙ্ক থেকে CPA মার্কেটিং এর যে পিডিএফ বই রয়েছে সেটি ডাউনলোড করে নিন।

 

সিপিএ মার্কেটিং পিডিএফ

 

আর উপরে উল্লেখিত সিপিএ মার্কেটিং পিডিএফ বইটির সহায়তায় আপনি খুব সহজেই সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা নিতে পারবেন।

তবে এখানে আমারই রিকমেন্ড হলো; আপনি এই সমস্ত পিডিএফ বই পড়ার চেয়ে ভিডিও লেকচার গুলো দেখে নিন। তাহলে কাজটা আরো সহজ হবে।

সিপিএ মার্কেটিং পেইড কোর্স

আপনি ফ্রি কোর্স করে যতটুকু শিখতে পারবেন হয়তো পেইড কোর্স করার মাধ্যমে এর চেয়ে ভাল ধারনা নিতে পারেন। তবে এই কথাটি মিথ্যাও হতে পারে।

অনেক সময় দেখা যায় আপনি ফ্রি কোর্স বা ভিডিও লেকচার দেখার মাধ্যমে যে সমস্ত বিষয় গুলো সেগুলো কোর্স করার সময় প্রায় একই রকম থাকে। অর্থাৎ তারা ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে একই বিষয় শেয়ার করে।

তবে এরকম অনেক ইন্ডাস্ট্রিজ রয়েছে যারা পেড কোর্স করার মাধ্যমে আপনাকে সমস্ত সিক্রেট কৌশলগুলো শিখিয়ে দিতে বাধ্য হয়। সেগুলো আপনার ফ্রি- কোর্সের থাকে না।

এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা আদায়ের জন্য আপনি সিপিএ মার্কেটিং এর যে পেইড কোর্স রয়েছে সেগুলো সহায়তা নিতে পারেন। আপনি যদি সিপিএ মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে নিচের দেয়া ইন্ডাস্ট্রিজ এর সহায়তা নিন।

Buy Course Buy Course

 

উপরে উল্লেখিত ইন্ডাস্ট্রিজ গুলোর মাধ্যমে আপনি সিপিএ মার্কেটিং পেইড করার মাধ্যমে শিখতে পারবেন। তবে আমার রিকমেন্ড হলো কোর্সগুলো করার আগে তাদেরকে ভালভাবে যাচাই করে নিন।

ওয়েব সাইট কর্তৃপক্ষ উপরে উল্লেখিত কোর্সগুলোর লিংক প্রকাশনা বা পাবলিশার হিসেবে প্রমোট করে না। কোর্সগুলো ভালো না হলে রিমুভ করা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

আর এভাবেই মূলত আপনি খুব সহজে ফ্রি এবং পেইড কোর্স করার মাধ্যমে CPA মার্কেটিং সম্পর্কে একেবারে অ্যাডভান্স লেভেলের বস হতে পারবেন। এজন্য দরকার ধৈর্য এবং কঠোর অধ্যাবসায়।

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন?

মূলত সমস্ত কোর্স কিংবা যেকোন উপায়ে সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে এডভান্স লেভেল নেয়ার পরে আপনার প্রধান কাজ হবে ; সিপিএ মার্কেটিং শুরু করার দিকে নজর দেয়া।

এবার আপনাকে ওই বিষয়গুলোকে প্র্যাকটিক্যালি করে টাকা আয় করার ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে; CPA মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন?

CPA মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে এরকম অনেক ওয়েবসাইট ইন্টারনেটে বিদ্যমান রয়েছে; যেগুলো আপনাকে মূলত কমপ্লিট করার মাধ্যমে ডলার আয় করিয়ে দিবে।

Maxbounty

 

যে সমস্ত হাই পেইড করা সিপিএ মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম রয়েছে সেগুলোর মধ্যে থেকে উল্লেখযোগ্য একটি হলো মেক্সবউন্টি। তাদের এখানে প্রায় 20 হাজারের অধিক প্রোডাক্ট বিদ্যমান রয়েছে।

এখানে চাইলে যে কেউ রেজিস্ট্রেশন করতে পারে এবং এই প্লাটফর্মে মধ্যে বিদ্যমান Lead গুলো কমপ্লিট করার মাধ্যমে ডলার আয় করতে পারে।

clickbooth

 

2002 সালে ইন্টারনেট লাঞ্চ করা সবচেয়ে বেশি পেমেন্ট প্রাপ্ত কিংবা সবচেয়ে বেশি কমিশন দেয়া প্ল্যাটফর্ম গুলোর মধ্যে থেকে একটি হলঃ Clickbooth.

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন
সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন

এখানে আপনি প্রত্যেকটি লিড কমপ্লিট করার মাধ্যমে অন্যান্য সমস্ত প্লাটফর্মে 25 পার্সেন্ট বেশি কমিশন আদায় করে নিতে পারেন। এছাড়াও ছোট-বড় মার্কেটারের জন্য এই প্লাটফর্ম সহনীয়।

admitad

 

এটি হলো এমন একটি চমকপ্রদ সিপিএ মার্কেটিং প্লাটফর্ম যেখানে প্রতিদিন এক হাজারেরও বেশি পাবলিশার 50k+ ডলার আয় করে।

এবং এই ওয়েবসাইটে মোট পাবলিশারের সংখ্যা প্রায় প্রায় ছয় লক্ষাধীক। যে সমস্ত পাবলিশার প্রতিনিয়ত ও তাদের লিড কমপ্লিট করার মাধ্যমে আয় করে যাচ্ছে।

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন
সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন

এছাড়া এ প্লাটফর্ম এর আরেকটি ভালো দিক হলো আপনি এই প্লাটফর্ম থেকে মাত্র 10 ডলার আয় করার মাধ্যমে এটি আপনার কাছে নিয়ে আসতে পারবেন।অর্থাৎ পে-আউট করতে পারবেন।

সবকিছু মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি পেমেন্ট করা CPA মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম গুলোর মধ্যে থেকে উপরে উল্লেখিত তিনটি ওয়েবসাইট সবচেয়ে বেশি কার্যকরী।

সিপিএ মার্কেটিং কৌশল

সিপিএ মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে অনেকগুলো কৌশল রয়েছে; যেগুলো আপনাকে CPA মার্কেটিং এর সফলতা অর্জন করতে সহায়তা করবে।

সিপিএ মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে আপনার সর্বাধিক সফলতার জন্য যে সমস্ত বিষয়গুলি থাকা অত্যাবশ্যকীয় সেগুলো হলোঃ

  • ওয়েবসাইট।
  • ভ্যালিড কাস্টমার/ বিশ্বাসযোগ্যতা।
  • অফার পেইজ।

ওয়েবসাইটঃ আপনি যদি সিপিএ মার্কেটিং এর সার্থক হতে চান তাহলে আপনার একটি ওয়েব সাইট থাকা অত্যাবশ্যকীয়। কারণ এই কাজগুলো ওয়েবসাইটের মাধ্যমে করলে সবচেয়ে ভালো হয়।

আপনি চাইলে বিভিন্ন উপায়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন তবে এক্ষেত্রে সবচেয়ে সহজ উপায়ে কয়েকটি ওয়েবসাইট বিল্ডার এর মাধ্যমে যদি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান; তাহলে নিচের আর্টিকেল দেখে আসুন।

ফ্রি ওয়েব সাইট তৈরি ১০ টি বিল্ডার এর সহযোগিতায়

 

অথবা আপনি যদি চান একদম ফ্রিতে ব্লগার প্ল্যাটফর্ম একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে তাহলেও নিচের দেয়া আর্টিকেল দেখে আসুন।

কোডিং ধারণা ছাড়া কিভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করব

 

মূলত উপরে উল্লেখিত দুটি উপায়ে আপনি একদম সহজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন এবং তারপরে এতে আপনার প্রোডাক্ট গুলো প্রমোট করতে পারবেন।

ভ্যালিড এবং বিশ্বাসযোগ্য কাস্টমারঃ আপনি যদি সর্বাধিক ভ্যালিড এবং বিশ্বাসযোগ্য কাস্টমার নিতে চান তাহলে আপনার ওয়েবসাইট থাকা অত্যাবশ্যক।

কারণ আপনি অন্যান্য যে সমস্ত প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে এই প্রোডাক্ট গুলো পোস্ট করবেন বিষয়গুলোতে Spamming এর হার অনেক বেশি থাকতে পারে। যা সফল হওয়ার পথে বিরাট বাধা।

অফার পেইজঃ আপনি যখন একটি লিড কমপ্লিট করতে যাবেন; তখনই আপনি আপনার ওয়েবসাইটে কিংবা অন্য যে কোন উপায়ে একটি অফার Page আপনার কাস্টমারের সামনে তুলে ধরুন।

অর্থাৎ এই পেইজটিতে আপনি আপনার প্রোডাক্টের বিস্তারিত আলোচনা করুন এবং এখানে ভিজিট করার মাধ্যমে তারা কি পাবে এবং কিভাবে লাভবান হবে সেটাও বর্ণনা করে দিন।

সফলতা পাওয়ার জন্য আপনি চাইলে ফানেল তৈরি করতে। যেই ফানেলের মাধ্যমে আপনি আপনার অডিয়েন্সের ইমেইল কালেক্ট করবেন এবং তার পরে তাদেরকে বিভিন্ন অফার সেন্ড করবেন।

কিভাবে আপনি খুব সহজেই একটি চ্যানেল তৈরি করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন নিচের দেয়া ভিডিও টিউটোরিয়াল এর মাধ্যমে।

আশাকরি উপরে উল্লেখিত ভিডিও টিউটোরিয়াল এর মাদ্ধমে আপনি খুব সহজে একটি Funel তৈরি করতে পারবেন এবং আপনার অডিয়েন্স ধরে রাখতে পারবেন।

মনে রাখবেন; আপনি যদি সর্বাধিক ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন তাহলে আপনার CPA মার্কেটিং এর সফলতা পাওয়ার সম্ভাবনা সিংহভাগ।

সিপিএ মার্কেটিং আয়

আপনি যদি সিপিএ মার্কেটিং করেন তাহলে খুব বেশি পরিমানে আয় করতে পারবেন। তবে আয় করার পরিমাণ নির্ভর করে আপনার কাজের উপর।

আমি যদি প্রচুর পরিমানে হার্ড ওয়ার্ক করেন; তাহলে প্রতি মাসে 10 থেকে 50 হাজার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তবে পরিশ্রম না করলে আপনি 10 টাকাও আয় করতে পারবেন না।

এছাড়াও আপনি যখন সিপিএ মার্কেটিং থেকে আয়ের করে নিবেন; তখন আপনি এই টাকাগুলো মূলত পেপাল, পেওনিয়ার, মাস্টার কার্ড, ভিসা কার্ড ইত্যাদির মাধ্যমে নিজের কাছে নিয়ে আসতে পারবেন।

সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে যে হিউজ টিউটরিয়াল আলোচনা করা দরকার যেখানে আপনি step-by-step জানতে পারবেন সেটা আশা করা যায় উপরে আলোচনা করা হয়েছে।

এছাড়াও কোন প্রশ্ন থাকলে আপনি অবশ্যই কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত তুলে পারেন; খুব শীঘ্রই আপনার প্রশ্নের জবাব নিয়ে হাজির হব।

শেষে অসংখ্য ধন্যবাদ আর্টিকেলকে মনোযোগ সহকারে এই অবধি পড়ার জন্য; আপনার দিনটি শুভ হোক।

Leave a Comment

2 × five =