জন্ম নিবন্ধন যাচাই এবং সংশোধন করার নিয়ম |

শিশুর জন্মের পরে ওই দিনটিকে স্মরণীয় কিংবা মনে রাখার জন্য আমাদেরকে অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন যাচাই বাচাই করতে হয়। তবে ভুল হয়ে গেলে করতে হয় জন্ম নিবন্ধন সংশোধন।

আমরা শিশুর নিবন্ধন করে রাখি যাতে করে আমরা পরবর্তী সময়ে সম্পর্কে অবগত হতে পারি যে, শিশুটি এই তারিখে জন্ম হয়েছে। এছাড়াও জন্ম নিবন্ধন করার আরো অনেকগুলো কারণ রয়েছে।

এর মধ্যে থেকে একটি হলো আপনি যখন বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয় পত্র নিতে চাইবেন তখন আপনাকে অবশ্যই আপনার পরিচয় হিসেবে জন্ম তথ্য দেখাতে হবে এবং তারপরেই অনুযায়ী আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ছাপা হবে।

আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে বিস্তারিত অনলাইনের মাধ্যমে জেনে নিতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আপনি চাইলে খুব সহজেই ঘরে বসে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারেন। এতে করে আপনার নিবন্ধনের যদি কোন রকমের ভুল থাকে তাহলে আপনি সেই সম্পর্কে অবগত হতে পারেন।

আপাতদৃষ্টিতে আপনি যদি আপনার নিবন্ধন যাচাই করতে চান; তাহলে আপনাকে বাধ্যতামূলক আপনার পাশে থাকা ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বরত কর্মকর্তা সহায়তা নিতে হয়।

তবে আপনি চাইলে খুব সহজে অনলাইনে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সহযোগিতায় নিবন্ধন সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যার সমাধান সহজেই করতে পারবেন।

আপনি যদি খুব সহজে অনলাইনে মাধ্যমে আপনাদের নিবন্ধন যাচাই করতে চান; তাহলে আপনাকে প্রথমে নিচের দেওয়া লিংকে ভিজিট করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই লিঙ্ক

 

যখনই আপনি উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করবেন তখন আপনার সামনে একটি পেজ ওপেন হবে। এই পেজের মধ্যে অনেকগুলো অপশন দেখতে পাবেন।

এসমস্ত আপনার গুলোর মধ্য থেকে আপনাকে “জন্ম তথ্য যাচাই” নামে যে অপশন রয়েছে সেই option এর ওপরে ক্লিক করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আপনি যখনই “জন্ম তথ্য যাচাই” অপশন রয়েছে তার উপরে ক্লিক করবেন তখন আপনার সামনে নতুন একটি ওয়েব পেইজ ওপেন হবে।

এই ওয়েব পেইজ এর মধ্যে আপনি প্রথমত দুইটি অপশন দেখতে পারবেন; এই দুইটি অপশন আপনাকে যথাযথভাবে ফিলাপ করতে হবে।

Birth Registration Number: যখনই আপনার জন্ম তথ্য এর কার্ড আপনার হাতে পেয়ে যাবেন, তখন আপনি এই কার্ডের উপরের দিকে অনেকগুলো সংখ্যা দেখতে পারবেন।

অর্থাৎ আপনি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আপনার যে জন্মতত্ব কার্ড সংগ্রহ করবেন তার উপরের দিকে আপনি “জন্ম নিবন্ধন নাম্বার” লিখা একটি অপশন পাবেন।

সেখান থেকে আপনাকে নাম্বার গুলো কালেক্ট করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

Date of birth: আপনার জন্ম সনদ এর কার্ডে যে জন্ম তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে, সেই জন্য তারিখে আপনাকে এখানে দিয়ে দিতে হবে।

এবং যখনই আপনি সঠিক তথ্য দিয়ে এই দুইটি বক্স ফিলাপ করে নিবেন তখন আপনাকে “Verify” নামের অপশন এর উপরে ক্লিক করে কন্টিনিউ করতে হবে।

এবং আপনি যখন ভেরিফাই অপশনটির উপরে ক্লিক করে নিবেন, তখন আপনি আপনার তথ্যগুলো যদি সঠিক দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনার নিবন্ধনের যে তথ্য রয়েছে সেই অনুযায়ী তথ্য পেয়ে যাবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই
জন্ম নিবন্ধন যাচাই

আর এভাবেই মূলত আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার জন্ম তথ্য যাচাই করে নিতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে। এতে কোনো রকমে বিভ্রান্তি নেই, আপনি মাত্র কয়েক ক্লিক এর মধ্যে কাজটি করতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন ফরম

আপনি যদি অনলাইনে মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন ফরম সংগ্রহ করতে চান; এবং তার পরে এটি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে জমা দিতে চান তাহলে পোস্টটি কন্টিনিউ করুন।

আপনি চাইলে খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের যে ওয়েবসাইট রয়েছে সেটির সহযোগিতায় আপনার নিবন্ধন ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন।

এই কাজটি করার জন্য আপনাকে প্রথমে নিচের দেওয়া লিংকে ভিজিট করতে হবে, এবং আমার দেখানো নিয়ম অনুসারে স্টেপ বাই স্টেপ কাজ পরিচালনা করে যেতে হবে।

 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

 

 

Step-1
যখনই আপনি এই লিংকে ভিজিট করবেন, তখন আপনার সামনে একটি ওয়েব পেইজ ওপেন হবে যেখানে প্রথমে আপনাকে আপনার “বিভাগ” সিলেক্ট করে নিতে হবে।

বর্তমান সময়ে আপনি কোন বিভাগে অবস্থান করছেন কিংবা আপনার পার্মানেন্ট যে বিভাগ রয়েছে, সেই বিভাগ আপনাকে এখান থেকে সিলেক্ট করে নিতে হবে।

Step-2
যখনই আপনি এই লিংকে ভিজিট করবেন, তখন আপনার সামনে একটি ওয়েব পেইজ ওপেন হবে যেখানে প্রথমে আপনাকে আপনার “বিভাগ” সিলেক্ট করে নিতে হবে।
Step-3
এবার আপনাকে আপনার যে “থানা” রয়েছে সেই থানা এর নাম সিলেক্ট করে নিতে হবে।
Step-4
এবার আপনাকে আপনার যে ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে সেটি সিলেক্ট করে নিতে হবে। তাহলে আপনাকে পরবর্তী আরেকটি বক্স দেয়া হবে।
Step-5
এবার আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদের যত নাম্বার ওয়ার্ডের রয়েছেন, সেই ওয়ার্ড সংখ্যা সিলেক্ট করে নিতে হবে।

 

এবার আপনাকে “পরবর্তী” নামের যে অপশন রয়েছে সেই অপশনে ক্লিক করার মাধ্যমে এই কাজটি কন্টিনিউ করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

এবার আপনাকে নতুন আরেকটি পেইজ নিয়ে যাওয়া হবে, যেখানে আপনাকে আপনার সমস্ত তথ্য দিয়ে এই ফর্ম গুলো পূরণ করে দিতে হবে।

আপনাকে অবশ্যই আপনার সঠিক তথ্য গুলো দিয়ে এই পেইজটি পূরণ করে নিতে হবে।

মনে রাখবেন; আপনি এখানে যে তথ্যগুলো দিবেন সেটি আপনার জন্ম নিবন্ধনে থাকবে। তাই কোনো রকমের ভুল করলে চলবে না।

পুরো নামঃ এখানে আপনি আপনার জন্ম তত্ত্ব এর জন্য যে পুরো নাম দিতে চাইবেন সেই নামটি দিয়ে দিন।

জন্ম তারিখঃ আপনি যার জন্য নিবন্ধন করতে চান, তার জন্ম কত সালে হয়েছে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত এখানে লিখে দিন। (যেমনঃ ৭ সেপ্টেম্বর ২০০০ সাল)

লিঙ্গঃ ওই ব্যক্তিটি ছেলে নাকি মেয়ে সম্পর্কে এখানে সিলেক্ট করে নিন।

মাতাঃ এখানে যার জন্য নিবন্ধন করেছেন ওই ব্যক্তির মায়ের নাম লিখে দিতে হবে।

জাতীয়তাঃ ওই ব্যক্তির মায়ের যে জাতীয়তা রয়েছে অর্থাৎ ঐ ব্যক্তিটি যে দেশে নাগরিক সেই দেশটি এখানে উল্লেখ করতে হবে।

পিতাঃ এখানে পিতার নাম লিখতে হবে, মনে রাখবেন তার পিতার নাম লিখবেন তার নাম সম্পূর্ণ ভাবে লিখতে হবে।

জাতীয়তাঃ আপনার পিতা কোন দেশের নাগরিক সেই দেশটি এখানে উল্লেখ করতে হবে।

জন্মস্থানঃ আপনি যেখানে জন্মগ্রহণ করেছেন ওই স্থানের সমস্ত তথ্য অর্থাৎ থানা, জেলা, উপজেলা ইত্যাদি এখানে উল্লেখ করতে হবে।

স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানাঃ এখানে আপনাকে আপনার স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা কথা উল্লেখ করতে হবে। অবশ্যই আপনার থানা, জেলা ইত্যাদি যথাযথভাবে উল্লেখ করে নিবেন।

যখনই আপনি সমস্ত তথ্য দিয়ে দিবেন তখন আপনাকে নিচের দিকে থাকা “পরবর্তী” নামক বাটন এর উপরে ক্লিক করতে হবে। তাহলে আপনাকে পরবর্তী পেজে নিয়ে যাওয়া হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

মূলত আপনাকে যখন পরবর্তী পেজে নিয়ে যাওয়া হবে, সেখানে আপনাকে আপনার পূর্ববর্তী পেইজের যে তথ্য দিয়েছিলেন সেই তথ্যগুলো ইংরেজি ভার্সন দিতে হবে।

আপনার নাম, পিতার নাম, মাতার নাম ইত্যাদি ইংরেজিতে দিতে হবে। এবং আপনার এড্রেস সহ সম্পূর্ণ তথ্য ইংরেজিতে দেয়ার পরে এই পেইজটি পরিপূর্ণ করে নিতে হবে।

আপনি যাতে এই তথ্যগুলো তে কোন রকমের ভুল না করেন, সে জন্য প্রত্যেকটি বক্সের পাশে আপনার ওই নামের বাংলা ভার্সন উল্লেখ করা হবে। যা আপনি পুর্বের পেজে লিপিবদ্ধ করেছিলেন।

আপনাকেই নামগুলোকে ইংরেজি ভার্সনে রূপান্তর করে নিতে হবে। আপনি চাইলে গুগল ট্রান্সলেট বাংলা থেকে ইংরেজি ব্যবহার করার মাধ্যমেই কাজটি করে নিতে পারেন। এতে ভুল হওয়ার কোন আশঙ্কা থাকবে না।

যখনই আপনি তথ্যগুলো পূর্ণ করে নিবেন তখন আপনাকে “পরবর্তী” নামের অপশন এর উপরে ক্লিক করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

যখনই আপনি পরবর্তী নামের অপশন এর উপরে ক্লিক করে নিবেন, তখন আপনাকে তারা আপনারা সমস্ত ইনফরমেশন গুলো আবার দেখাবে।

আপনি যদি এটা মনে করেন যে আপনার ইনফরমেশন এর মধ্যে কোনো রকম ভুল তথ্য রয়েছে, তাহলে আপনি সেটি পরিবর্তন করার জন্য “পেছনে” নামের বাটন তৈরি করে ক্লিক করে তথ্যগুলো আবার যাচাই করে নিতে হবে।

যদি আপনি এটা মনে করেন যে আপনার দেয়া তথ্যগুলো সঠিক হয়েছে, তাহলে আপনি “সংরক্ষণ” নামের যে বাটন রয়েছে তাতে ক্লিক করে তথ্যগুলো সংরক্ষণ করে নিতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড
জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

আপনি যখন এই তথ্যটি সংরক্ষণ করে নিবেন তখন আপনার সামনে আরেকটি নতুন পেজ ওপেন হবে। যেখানে আপনাকেই সম্পর্কে অবগত করা হবে যে আপনারা তৈরি করা হয়ে গেছে।

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড pdf

আপনাকে মূলত এই পেইজটিতে আপনার আবেদন পত্রের নাম্বার রয়েছে সেটি দেয়া হবে। এবং এই সম্পর্কে অবগত করানো হবে যে আপনার এই নিবন্ধটির সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে দাখিল করা হয়েছে।

এবার আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড pdf করে নিতে চান, তাহলে নিচের দিকে “Print” নামক অপশনটিতে ক্লিক করুন।

তাহলে আপনার ফোনে মধ্যে থাকা প্রিন্টার সহযোগিতায় এটি আপনার ফোনে সেভ করে নিতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড pdf
জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড pdf

আপনি যখনই এটি সেভ করে নিবেন, তখন আপনি চাইলে এই প্রিন্ট ফাইলটি আপনার নিকটস্থ নিবন্ধকের কাছে পেশ করতে পারেন।

আপনাকে ঘিরে যে ইউনিয়ন পরিষদ সব সময় সেবা দিচ্ছে সেখানে চলে যেতে হবে এবং তারপরে আপনার নিবন্ধনের প্রিন্ট ফাইলটি দাখিল করতে। তারপরে তারা প্রয়োজনীয় সাহায্য আপনাকে করতে করবে।

তারা মূলত আপনাকে এই যে জন্ম তথ্য রয়েছে তাদের প্রয়োজনীয় সিগনেচার সহ এই তথ্য কে ভ্যালিড হিসেবে প্রমাণিত করতে সহায়তা করবে; এবং এই তথ্য কালেক্ট করে নিতে সাহায্য করবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন

যদি কোনো উল্লেখযোগ্য কারণে আপনার জন্ম নিবন্ধনে কোন রকমের ভুল-ভ্রান্তি হয়ে থাকে; তাহলে আপনি নিশ্চয়ই আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চাইবেন।

আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চান, তাহলে আপনাকে কিছুটা কষ্ট করে হলেও আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদের সহযোগিতা নিতে হয়।

তবে আপনি যে একবার গেলেই আপনার এই সমস্যাটি সমাধান হয়ে যাবে সেরকম কোনো গ্যারান্টি নেই।

অনেক সময় দেখা যায় আপনার সমস্যা সমাধানের জন্য আপনাকে বারবার এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় পরিভ্রমণ করতে হয়।

আপনার এই সমস্যাটি একবারেই সমাধান নিয়ে নিতে পারেন, এক্ষেত্রে আপনাকে যে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম রয়েছে, সেটি ডাউনলোড করে প্রিন্ট আউট করে নিতে হবে।

আপনি যখনই এই ফরমটি প্রিন্ট আউট করে নিবেন, তখন আপনি চাইলে এটিকে সংশোধন করে আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে জমা দিতে পারেন এবং সমাধান পেতে পারেন।

ফরম ডাউনলোড করুন

 

উপরে উল্লেখিত লিঙ্ক থেকে আপনি যখনই ফর্ম টি ডাউনলোড করে নিবেন, তখন আপনি এই ফরম প্রিন্ট আউট করে নিন এবং তারপরে আপনার সঠিক তথ্য দিয়ে ফিলাপ করে নিন।

এবার আপনি আপনার সঠিক তথ্য সহকারে এই প্রথমটি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদের জমা দেয়ার মাধ্যমে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন   করে নিন।

Leave a Comment

3 × three =