নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুযোগ সুবিধা |

বর্তমান সময় হল ডাক এবং টেলিযোগাযোগের সময়। আপনি চাইলে খুব সহজেই করে করতে আপনার মোবাইল ফোন কে কাজে লাগিয়ে যে কোন লেনদেন পরিচালনা করতে পারেন।

বিকাশ রকেট এর মত একই রকম মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলোঃ নগদ মোবাইল ব্যাংকিং। যার মাধ্যমে আপনি চাইলে ঘরে বসে যে কোনো রকমের লেনদেন করতে পারেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা এর সাথে নিযুক্ত হওয়ার জন্য আপনাকে শুধুমাত্র একটি নগদ একাউন্ট তৈরি করতে হবে। আর আপনি নগদ একাউন্ট একদম বিনামূল্যে তৈরি করতে পারেন।

আজকের এই পোস্টটিতে নগদ এর অধীনে যে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা আপনি উপভোগ করতে পারবেন, সে সম্পর্কে পরিপূর্ণ আলোচনা করা হবে।

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর বহুবিধ সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। আপনি এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা শুধুমাত্র নগদ এর অধীন একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করলেই পাবেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুযোগ সুবিধা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য এবং যেগুলো বর্ণনা না করলেই নয়, সেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো।

ক্যাশ ইনঃ আপনি চাইলে ঘরে বসেই যেকোনো সময় যেকোনো নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট এর কাছ থেকে আপনার নগদ একাউন্টে ব্যালেন্স যুক্ত করতে পারবেন।

সেন্ড মানিঃ আপনি যদি অন্য কোন নগদ একাউন্ট এর সাথে আপনার একাউন্টে টাকা ভাগাভাগি করতে চান; কিংবা সেন্ড মানি করতে চান তাহলে আপনি তা খুব সহজেই করতে পারেন।

ক্যাশ আউটঃ যেকোনো প্রয়োজনে যেকোনো জায়গায় আপনি নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে আপনার নগদ একাউন্ট থেকে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

সঞ্চয়ঃ আপনি নগদ একাউন্ট ছাড়া টাকা পাঠাতে এবং গ্রহণ করতে পারবেন; অর্থাৎ এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য আপনার নগদ একাউন্ট না হলেও হবে। এছাড়া টাকা জমালে ইন্টারেস্ট পাবেন।

বিল পেঃ যদি আপনি যেকোন বিদ্যুৎ অপারেটরের কাছে আপনার প্রয়োজনীয় বিল পেমেন্ট করতে চান তাহলে আপনি নগদ একাউন্টের মাধ্যমে খুব সহজেই করতে পারবেন।

মোবাইলে রিচার্জঃ কোন সংকটাপন্ন মুহূর্তে যখন আপনারা ফ্লেক্সিলোড এর প্রয়োজন হবে; তখন আপনি খুব সহজেই নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে আপনার মোবাইলে রিচার্জ করে নিতে পারেন।

আর নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যে সুবিধা গুলো রয়েছে সেগুলো আমি উপরে আলোচনা করেছি।

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক কোড

 

আপনার নগদ একাউন্ট এর বর্তমান ব্যালেন্স কিংবা যেকোন সময়ে থাকা ব্যলেন্স যদি আপনি চেক করতে চান তাহলে আপনার মুঠোফোন থেকে ডায়াল করুন: *167#

এই কোডটি আপনার ফোনে ডায়াল করার পরে বিভিন্ন স্টেপ ফলো করার মাধ্যমে আপনি আপনার নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক কোড *167#”

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার

 

নগদ একাউন্ট সম্পর্কিত যেকোন সমস্যার মধ্যে আপনি যদি পতিত হন তাহলে এই সমস্যা থেকে উদঘাটনের জন্য আপনি চাইলে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার সহযোগিতা নিতে পারেন।

এই নাম্বারটি আপনাকে সেবা দেয়ার জন্য দিনে 24 ঘন্টা এবং সপ্তাহের সাতদিনই খোলা রয়েছে; শুধুমাত্র আপনি কল দেয়ার পরেই আপনার সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

নগদ ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার মূলত দুইটি রয়েছে। যেগুলো সহযোগিতায় আপনি খুব সহজেই যেকোনো সমস্যার সমাধান পেতে পারবেন।

নগদ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার দুটি হল: 16167 অথবা 09609616167” সর্বাধিক সেবা পাওয়ার লক্ষ্যে অবশ্যই এই দুটি নাম্বার আপনার ফোনে সেভ করে রাখবেন। যাতে করে পরবর্তী সময়ে আপনার কোনো রকমের ভোগান্তিতে না পড়তে হয়।

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার

 

আপনি কি জানেন আপনি যদি নগদ একাউন্টে টাকা জমা রাখেন; তাহলে আপনি নগদ একাউন্ট থেকে সঞ্চয় বাবদ অনেক লাভ পাবেন।

এটি মূলত নগদ এর অথরিটি টিম কর্থিক নির্বাচন করা হয়েছে। যেখানে নির্দিষ্ট হিসাব পরিমাণ টাকার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ মুনাফা প্রদান করা হবে বছরের শেষে।

  • মুনাফা হার ৫০০১ টাকা থেকে ৩০০,০০০ টাকা= মুনাফার পরিমাণ ৭.৫%
  • ১০০১ টাকা থেকে ৫০০০.৯৯ টাকা= মুনাফার পরিমাণ ৫.০%
  • ০ টাকা থেকে ১০০০.৯৯ টাকা= মুনাফার পরিমাণ .০%

আপনি যদি নগদ একাউন্টে টাকা সঞ্চয় করেন তাহলে আপনি উপরে উল্লেখিত হারে মুনাফা পাবেন। এছাড়াও এই মুনাফা আপনি যদি বাতিল করতে চান তাহলে ১৬১৬৭ এই নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ইন্টারেস্ট

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ইন্টারেস্টের হার মূলত আপনার জন্য 5000 টাকা থেকে শুরু হবে। আপনি এক টাকা থেকে 1 হাজার টাকা পর্যন্ত যখন জমিয়ে খেলবেন তখন আপনার জন্য কোন ইন্টারেস্ট প্রযোজ্য হবে না।

এক্ষেত্রে আপনি সর্বনিম্ন পাঁচ হাজার টাকা আপনার নগদ একাউন্টে সঞ্চয় হিসেবে রাখলে প্রতি বছর শেষে আপনি 7.5 ইন্টারেস্ট উপভোগ করতে পারবেন।

তবে এটা আসলেই হালাল নাকি হারাম সম্পর্কে আমার কোন ধারণা নেই। বিষয়টি পর্যালোচনার জন্য আপনি এই সেবা উপভোগ এর আগে কোন একজন অভিজ্ঞ আলেমে দ্বীনের সহায়তা নিতে পারেন।

 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট

 

আপনি যদি নগদ এজেন্ট হতে চান তাহলে আপনাকে যে সমস্ত বিষয় গুলো সংগ্রহ করতে হবে সেগুলো হলোঃ

  • আপনার দোকানের ট্রেড লাইসেন্স।
  • আপনার ছবি এবং যে ট্রেড লাইসেন্স তৈরি করেছেন তার ছবি; সাথে এনআইডি কার্ড।
  • আপনার দোকানের শীল।
  • সম্পূর্ণ নতুন একটি নাম্বার। যার মাধ্যমে আপনি নগদ একাউন্ট তৈরি করবেন।

উপরে উল্লেখিত বিষয়বস্তু যখন আপনার হাতের নাগালে থাকবে তখন আপনি চাইলে আপনার আশেপাশে থাকা নগদ ডিস্ট্রিবিউশন প্রতিনিধি রয়েছেন তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

নগদ ডিস্ট্রিবিউশন প্রতিনিধি সম্পর্কে আপনি যদি না জানেন তাহলে আপনার আশেপাশে থাকা অন্য নগদ এজেন্ট এর কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করতে পারেন।

যখন আপনি নগদ ডিস্ট্রিবিউশন প্রতিনিধি আওতাধীনে যাবেন, তখন আপনাকে তারা যাচাই বাছাই করার জন্য কিছু সময় নেবে। এই সময়ের পরিমাণ 20 থেকে 30 দিন হতে পারে।

যখনই তারা আপনার সম্পর্কে কনফার্ম হয়ে যাবে এবং এটা মনে করবে যে আপনি নগদ এজেন্ট হওয়ার জন্য উপযোগী। তখন তারা আপনাকে এজেন্ট এর জন্য একটি সিম দিয়ে দিবে।

নগদ ব্যাংকিং এজেন্ট হওয়ার জন্য মূলত উপরে উল্লেখিত প্রসেস গুলো ফলো করতে হবে। আপনি যদি নগদ এজেন্ট হয়ে যান, কেউ যদি আপনার মাধ্যমে লেনদেন করে তাহলে প্রতি 1 লক্ষ টাকায় 410 টাকা লাভ করতে পারবেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং অফার

 

আপনি যদি নগদ ব্যবহারকারী হন তাহলে নিশ্চয়ই আপনি এই সংক্রান্ত বিভিন্ন অফার সম্পর্কে অবগত হতে পারবেন।

নগদ ব্যাংকিং অফার খুবই আকর্ষণীয় টাইপের হয়ে থাকে যেগুলো যে কেউ আনন্দ সহকারে গ্রহণ করবে।
নগদ অফার গুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো কয়েকটি অফার নিচে তুলে ধরা হলো।

  • ২,১০০ টাকার কম যদি আপনি ক্যাশ আউট করেন তাহলে; অ্যাপ দিয়ে করলে ভ্যাটসহ আপনার একাউন্ট থেকে ১৭.৫০ টাকা কেটে যাবে; আপনি যদি ইউএসডি কোড দিয়ে করেন তাহলে চার্জ হবে: ১৮.৫০ টাকা।
  • ২,১০০ টাকার বেশি আপনি যদি কিছু ক্যাশআউট করেন ; তাহলে অ্যাপ দিয়ে করলে vat সহ কেটে যাবে- ১১.৪৯ টাকা, এবং ইউএসডি কোড দিয়ে করলে: ১৪.৯৪ টাকা।

আর উপরে উল্লেখিত অফার গুলো খুবই জনপ্রিয়; এছাড়াও নগদ এর সর্বশেষ অফার সম্পর্কে অবগত হতে চাইলে নিচের দেয়া লিঙ্ক এর সহযোগিতা নিতে পারেন।

নগদ অফার

আশাকরি উপরে উল্লেখিত অফারগুলো আপনি পছন্দ করবেন; সর্বশেষ অফার সম্পর্কে সবার আগে অবগত হওয়ার জন্য উল্লেখিত লিংকটি আপনার বুকমার্কে সেভ করে রাখুন।

Leave a Comment

two × 5 =