রকেট একাউন্ট | রকেট ব্যাংকিং একাউন্ট কিভাবে হ্যাক হয়

রকেট একাউন্ট | রকেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট কিভাবে হ্যাক হতে পারে?


আপনি যে কোন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করেন না কেন সেই প্লাটফর্মে আপনার কোন ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

যার মানে হল ওই প্ল্যাটফর্মের সাথে হ্যাকিং এর প্রাদুর্ভাব আপনি অবশ্যই লক্ষ্য করতে পারেন এবং কোন একটি ভুল সিদ্ধান্ত আপনার সারা জীবনের আয়কে একেবারে ধূলিসাৎ করে দিতে পারে। 

আর আপনি যদি ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এর একটি জনপ্রিয় সেবা অর্থাৎ রকেট একাউন্ট খুলে থাকেন তাহলেও হ্যাক হওয়ার মত ঘটনা ঘটতে পারে।

রকেট একাউন্ট এর মাধ্যমে আপনি যেহেতু টাকা লেনদেন করবেন সেহেতু ওইটা টাকাকে অন্যকেউ একদম কম সাধনায় পাওয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগে থাকতে পারে।

এখাতে রকেট একাউন্টের পুরোপুরি সিকিউরিটি আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যাতে করে এই রকেট একাউন্ট কেউ হ্যাক করে আপনার টাকা গুলো নিয়ে নিতে না পারে।

স্যার আজকের এই পোস্টটিতে আমি রকেট একাউন্ট এর পুরোপুরি সেফটি সম্পর্কে আলোচনা করব যার মাধ্যমে আপনি আপনার রকেট একাউন্ট হ্যাকিং সংক্রান্ত সমস্যা থেকে রক্ষা করতে পারবেন।

কেন রকেট একাউন্ট হ্যাক হয়?


রকেট একাউন্ট হ্যাক হওয়ার জন্য মূলত আপনি আমি দুজনেই দায়ী কারণ আমাদের কিছু ভুল কাজ সম্পাদনের মাধ্যমেই হ্যাকাররা আমাদের রকেট একাউন্ট হ্যাক করে নিতে চায়।

যেমন আপনাকে যে কেউ বলল আপনি আপনার রকেট একাউন্ট এর পাসওয়ার্ডে আপনার জন্মদিন কিংবা আপনার নামের সাথে কিছু অক্ষর যোগ বিয়োগ করে, আপনার পাসওয়ার্ড টি জানার চেষ্টা করে এবং আপনি বোকার মত এই কনসেপ্ট তাকে বুঝিয়ে দেন।

শুধু তাই নয় আপনি যে এখনই একটি এজেন্টের দোকানে যাওয়ার পরে ওই এজেন্ট কে আপনার ফোনটি ধরিয়ে দিলেন এবং আপনার পাসওয়ার্ড তাকে বলে দিলেন।

ব্যক্তিটি পাসওয়ার্ড সেভ করে রেখেছিল এবং তারপরে আপনার অ্যাকাউন্টের পুরোপুরি নিজের আয়ত্বে নিয়ে নিল। 

আর এভাবেই মূলত আপনার রকেট একাউন্ট হেক করার মত খারাপ কাজ করতে পারে।

আর আপনি যদি আপনার রকেট একাউন্টের পুরোপুরি সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে চান এবং আপনার রকেট একাউন্ট হ্যাক হওয়া থেকে মুক্ত করতে চান তাহলে যে ট্রিক্সগুলো আপনাকে অবশ্যই ফলো করতে হবে সেগুলো হলো।

পাসওয়ার্ডঃ

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা নতুন কোন রকেট একাউন্ট খোলার সময় ভুল পাসওয়ার্ড নির্বাচন করে ফেলেন যাতে করে তারা হ্যাকিংয়ের সম্মুখীন হন।

আর আপনিও যদি রকেট একাউন্ট খোলার সময় কোন ভুল পাসওয়ার্ড সিলেক্ট করে নেন তাহলে এটি আপনার রকেট একাউন্ট হ্যাক হওয়ার ঘটনা ঘটাতে পারে।

এক্ষেত্রে আপনি যখন পাসওয়ার্ড নির্বাচন করবেন তখন আপনি একটি স্ট্রং লেভেলের পাসওয়ার্ড নির্বাচন করবেন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা পাসওয়ার্ড নির্বাচনের সময় ভুল পাসওয়ার্ড যেমন ৫৫৬৬৯৯ এই টাইপের কোন পাসওয়ার্ড দিয়ে দেন, যা তাদের রকেট একাউন্ট হ্যাক হওয়ার প্রধান কারণ হয়ে যায়।

আর তাই আপনি যদি আপনার রকেট একাউন্ট পুরোপুরি সেইফ রাখতে চান তাহলে অবশ্যই একটি স্ট্রং লেভেলের পাসওয়ার্ড নির্বাচন করবেন, উপরুক্ত পাসওয়ার্ড এর মত ভুল পাসওয়ার্ড কখনোই শনাক্ত করতে যাবেন না।

টাকা উত্তোলনের সময়ঃ

টাকা উত্তোলনের সময় আমরা প্রায় সময় নানা রকমের ভুল করে থাকি এর মধ্যে একটি হল আমরা আমাদের পাসওয়ার্ড কোন এজেন্ট কে বলে দেই।

আর আপনার এই ছোট্ট ভুলটি আপনার পুরো বছরের সাধনাকে একেবারে ধূলিসাৎ করে দিতে পারে।

আপনাকে অবশ্যই রকেট একাউন্ট ব্যবহার করার বুঝে নিতে হবে এবং তারপরে আপনি আপনার নিজের হাতে পন্টি রেখে আপনার একাউন্ট থেকে সেন্ড মানি কিংবা ক্যাশ আউট করতে হবে।

এছাড়াও আপনার যদি কোন ট্রাস্টেড এজেন্ট থেকে থাকে তাহলে আপনি feel-free ব্যক্তির সাথে পাসওয়ার্ড শেয়ার করতে পারেন, এখানে রিস্কি হয়ে গেলে এটা একান্তই আপনার ব্যাপার।

ফোন কলে প্রতারকঃ

আপনি অনেক সময় এ রকম কোনো প্রতারককে দেখতে পারবেন যারা আপনাকে কল দেয়ার পরে আপনার জন্মদিন কিংবা মোবাইল নাম্বারের সাথে যে কোন একটি অক্ষর মিলিয়ে আপনার পাসওয়ার্ড জানার চেষ্টা করবে।

এক্ষেত্রে ভুলেও আপনি তাদের পাতানো ফাঁদে পা দিবেন না কারন তারা আপনার পাসওয়ার্ড যখন জেনে নেবে তখন আপনার অ্যাকাউন্টে সমস্ত টাকা তাদের কাছে নিয়ে নিবে। 

তাই কেউ যদি আপনার সাথে এরকম প্রতারণা করার চেষ্টা করে তাহলে আপনি feel-free রকেট এর যেকোনো কাস্টমার কেয়ারের সাথে যোগাযোগ করে আপনার সমস্যাটির কথা বলে দিতে পারেন।

এছাড়াও আপনি যদি পারেন তাহলে কিছুদিন পরে পরে আপনার রকেট একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করবেন কারণ আপনার একাউন্ট এর সিকিউরিটি সর্বোচ্চ সীমা হলো আপনার রকেট একাউন্টের পাসওয়ার্ড।

রকেট একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে ফেললে আপনার একাউন্ট পুরোপুরি সিকিউরিটি নিশ্চিত হয়ে যাবে।

আপনি আপনার রকেট একাউন্টের পুরোপুরি সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে পারেন।

Leave a Comment

sixteen − fourteen =