ফেসবুকের সমস্ত ডিজেবল সংক্রান্ত আলোচনা গাইড|

ফেসবুকের সমস্ত ডিজেবল সংক্রান্ত আলোচনা নিয়ে একটি পরিপূর্ণ গাইড দেখে নিন|



ফেসবুকে যখনই আপনি তাদের দেয়া পলিসিকে যথাযথভাবে মানবেন করবেন না তখনই তারা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট যে কোনো রকমের ডিজেবল করে দিতে পারে।


আর ভিন্ন ভিন্ন রকমের ফেসবুক পলিসি অমান্য করার কারণে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ভিন্ন ভিন্ন রকমের সমস্যা দেখা দিবে।


কারণ সব কিছুরই একটা নিয়ম আছে, আর ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এরকম কিছু নিয়ম তৈরি করেছে যেগুলো অবশ্যই আপনাকে মানতে হয়।


আর আজকের এই পোস্টটিতে আমি সম্পূর্ণ আলোচনা করব ফেসবুকে ডিজেবল সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে, আর ডিজেবল থেকে বাচতে হলে আপনাকে অবশ্যই এগুলো জানতে হবে এবং মানতে হবে।

 প্রিটেন্ডিং ডিজেবল



কেউ আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে অতিরিক্ত রিপোর্ট করার কারণে এই প্রিটেন্ডিং ডিজেবল হয়ে যেতে পারে, এটি একটি মারাত্মক সমস্যা।


যখনই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট প্রিটেন্ডিং ডিজেবল হয়ে যাবে, তখনই এটা আবার ফেরত আনতে আপনাকে অনেক ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হবে।


কারণ অন্যান্য সাধারণ ফেসবুক একাউন্ট ডিজেবল সংক্রান্ত সমস্যা খুব সহজেই সমাধান করা যায়, আর এই সমস্যাটি এসকল সমস্যার পরিপন্থী।


▪সমস্যাটি এড়াতে কিছু করণীয়-


ফেসবুকে কারো সাথে কখনোই ঝগড়ায় জড়াবেন না, বিশেষ করে ফেসবুকে যে সমস্ত স্প্যামাররা আছে তাদের সাথে।


সব সময় একই লোকেশন থেকে লগইন করার চেষ্টা করবেন, ভিপিএন যখন কানেক্ট করা থাকবে তখন ফেসবুক একাউন্ট লগইন করা থেকে বিরত থাকুন।


ফেসবুক একাউন্ট তৈরি করার সময় স্টাইলিশ নাম দেয়া থেকে বিরত থাকুন, আপনার রিয়াল লাইফ যে নাম ব্যবহার করেন সেটি দেয়ার চেষ্টা করুন।


প্রোফাইলে কোন রকমের অ্যাডাল্ট পিকচার কিংবা স্ট্যাটাস শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন, এবং প্রোফাইলটিকে পুরোপুরি কাস্টমাইজ করুন।


আপনার ফেসবুক আইডিতে যে ইনফর্মেশন গুলো দিবেন সেগুলো কে সঠিকভাবে দেয়ার চেষ্টা করুন, এবং প্রোফাইলটিকে শত ভাগ পরিপূর্ণ করুন।


তাহলেই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আর কখনোই প্রিটেন্ডিং ডিজেবল হবে না।

 ফেসলক  ডিজেবল



যখনই আপনি ফেসবুক একাউন্ট একটি অনিরাপদ লোকেশন থেকে লগইন করেন তখনই ফেসবুক কর্তৃপক্ষ
আপনার সুবিধার্থে এটিকে ফেসলক ডিজেবল সমস্যায় ফেলে দেয়।


এটি সাধারণত একটি কার্যকরী উপায় ফেরত আনা সম্ভব,কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় আমাদের একাউন্ট ফেসলক ডিজেবল হয়ে পার্মানেন্টলি ডিজেবল হয়ে যায়।


আর আপনি যদি আপনার ফেসবুক একাউন্টে কিছু কার্যকরী পদক্ষেপ নেন তাহলে কখনোই আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফেসলক সমস্যায় পরবে না।


▪পদক্ষেপ সমূহ-


একটি ভালো প্রোফাইল পিকচার ব্যবহার করুন, যে প্রোফাইল পিকচার দিতে আপনার মুখটি পুরোপুরি দেখা যাবে। অর্ধেক কোন ছবি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।


আপনার ফেসবুক প্রোফাইলকে পুরোপুরিভাবে পূরণ করুন, এখানে পুরোপুরি বলতে- প্রোফাইল পিকচার, হোম টাউন, আপনার অধ্যায়নরত স্কুল কলেজ ইত্যাদি ফিলাপ করুন।


আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে অবশ্যই ইমেইল এর পাশাপাশি একটি ফোন নাম্বার অ্যাড করে রাখুন। ফোন নাম্বার না থাকা ফেসবুক একাউন্ট এ সমস্যা বেশি দেখা যায়।.


পূর্বের সমস্ত আনকমন লোকেশন থেকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগ আউট করে নিন, এতে করে পূর্বে কোন সন্দেহজনক লোকেশন থাকলে তা মুছে যাবে।


সেজন্য আপনাকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে Setting-Security And Login-WHERE YOU’RE LOGGED IN তারপর সকল লগইন সিজন লগ আউট করে দিন।

ফেসবুকের সমস্ত ডিজেবল সংক্রান্ত আলোচনা নিয়ে একটি পরিপূর্ণ গাইড দেখে নিন|



এই সমস্যা যাতে আপনার কখনো না হয় এজন্য আপনি একটি কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে পারেন, আর তা হল আপনার ফেসবুক একাউন্ট অবশ্যই  টু স্টেপ ভেরিফিকেশন অপশন খোলা রাখতে হবে।


আপনাকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে Setting-Security And Login-TWO-FACTOR AUTHENTICATION– এবং তারপর আপনাকে আপনার একটি ফোন নাম্বার দিয়ে এটিকে ভেরিফাই করে নিতে হবে।

ফেসবুকের সমস্ত ডিজেবল সংক্রান্ত আলোচনা নিয়ে একটি পরিপূর্ণ গাইড দেখে নিন|





এবং এতে করে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে টু স্টেপ ভেরিফিকেশন অপশনটি চালু হয়ে যাবে, ফলশ্রুতিতে আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফেসলক ডিজেবল সংক্রান্ত কোন সমস্যা হবে না।

 কপিরাইট ডিজেবল



যখনই আপনি অন্যের কোন পোস্ট কিংবা ছবি আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে কপি করে নেন, এবং তারপর পাবলিশ করেন।  


তখন যদি এই প্রোফাইলের মালিক রিপোর্ট করে এবং ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আপনার প্রোফাইল থেকে রিমুভ করে দেয় তাহলে এটাকে কপিরাইট ডিজেবল বলে।


এটা একটি মারাত্মক সমস্যা, এই সমস্যার কারণে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সাময়িক ডিজেবল ছাড়াও একেবারে পার্মানেন্টলি ডিজেবল হয়ে যেতে পারে।


▪তাই আমি এই সমস্যা থেকে উত্তোলনের কিছু উপায় বলে দিচ্ছি-


প্রথমত কখনো কারো প্রোফাইল থেকে কোন স্ট্যাটাস চুরি করে এনে আপনার প্রোফাইলে পাবলিশ করে দিবেন না, কারণ যখনই কেউ কোন পোস্ট পাবলিশ করে তখন তা ফেসবুক সার্ভারে জমা হয়।


আর এই একই রকম পোস্ট যদি আপনি করেন, আর ওই ব্যক্তিটি তখন যদি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট করে তাহলে তারা আপনার পোস্টটি অবশ্যই রিমুভ করে দিবে।


এবং এরকম যদি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আপনার অনেক পোস্ট রিমুভ করে দেয়,  তাহলে আপনার ফেইসবুক একাউন্ট পার্মনেন্টলি ডিজেবল হয়ে যাবে।


গুগল থেকে আপনি কখনো কোন ছবি চুরি করে আনবেন না, গুগলের এরকম অনেক ছবিরই কপিরাইট থাকে। 


গুগোল থেকে ছবি যখন এনে আপনি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে পোস্ট করবেন তখন আপনাকে একটি ছোট্ট পদ্ধতি মানতে হবে তাতে করে এই ছবিটি আর কপিরাইট এর আওতাধীন হবে না।


▪ ছবিটিকে রিসাইজ করুন, আপনি চাইলে গুগোল থেকে ছবি এনে তাকে কেটে  ছোট করতে পারেন।


▪ ছবির উপরে কিছু লিখে আপনি চাইলে এর কপিরাইট এড়াতে পারেন, আপনি  চাইলে যে কোন কিছু লিখতে পারেন।

 সন্ত্রাসবাদী রিপোর্টে ডিজেবল



আপনি যদি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে এরকম কোন ছবি শেয়ার করেন যেগুলো ফেসবুকে কখনো গ্রহণযোগ্য নয় তাহলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এ রকম কিছু ডিজেবল হয়ে যেতে পারে।


উদাহরণস্বরূপ আপনি যদি ফেসবুকে এমন কিছু ছবি শেয়ার করলেন যেমন একটি অবৈধ- অস্ত্র, মার্ডার এর প্রকাশ্য ছবি যাতে এখনো রক্ত লেগে আছে ইত্যাদি।


আর এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে কেউ যদি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে রিপোর্ট করে ওই ছবিটি কে নিয়ে তাহলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ অবশ্যই আপনার অ্যাকাউন্ট রিমুভ করে দিবে।


সমস্যা এড়াতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস-


আপনি যদি ফেসবুকে এরকম কোন দৃশ্য শেয়ার করতে চান , যেমন কেউ রক্তাক্ত অবস্থায় মরে গেছে এরকম কিছু তাহলে আপনাকে অবশ্যই যে অংশে রক্ত লেগে আছে সেটাকে রিমুভ করতে হবে।


আপনি চাইলে রক্ত লেগে থাকা অংশটিকে কিছুটা ঝাপসা করে দিতে পারেন এডিট করে, এবং তারপর শেয়ার করলে কোন সমস্যা হবে না।


কোন অস্র শেয়ার করলে অবশ্যই এর ঠিকানা দিবেন, এবং আমি এটা বুঝিয়েছি যে কিসের জন্য আপনি এটা শেয়ার করেছেন তার বৃত্তান্ত  বর্ণনা করবেন।


এতে করে সন্ত্রাসবাদি রিপোর্টের কারণে হওয়া সমস্যাটি আপনার ফেসবুক একাউন্টে কখনো দেখা দিবে না।

Leave a Comment

fourteen + six =